কোচবিহার দক্ষিন বিধানসভা কেন্দ্রে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষে, সর্বদলীয় বৈঠক প্রশাসনের

31

কোচবিহার, ৭ সেপ্টেম্বরঃ এবার শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষে কোচবিহারে সর্বদলীয় বৈঠক করলেন সদর মহকুমা প্রশাসন। শনিবারের এই বৈঠকে প্রশাসনিক আধিকারিকরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা। লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকেই কোচবিহার দক্ষিন বিধানসভা কেন্দ্রের ১নং ব্লক জুড়ে তৈরি হয়েছে অশান্তির পরিবেশ। এই অবস্থায় শান্তি স্থাপনের প্রয়াস নিয়ে স্থানীয় বিধায়ক মিহির গোস্বামীর অনুরোধে সর্বদলীয় বৈঠকের আহ্বান জানান সদর মহকুমাশাসক।

লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে গ্রামীণ রাজনৈতিক ক্ষমতা কার হাতে থাকবে এই নিয়ে গোটা দক্ষিন বিধানসভা কেন্দ্রের ১নং ব্লক জুড়ে শুরু হয়েছে অশান্তি। এই অশান্তিরভ জেরে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে ব্যবসাবানিজ্য। এমনকি শিক্ষা স্বাস্থ্য সহ প্রায় সমস্ত কিছুতেই পড়ছে এর প্রভাব। পরিস্থিতি এতটাই ভয়াবহ ব্লকের কোনও না কোনও গ্রাম গুলি বন্দুক তীর ধনুকের লড়াই হয়ে দাঁড়িয়েছে নিত্যদিনের ঘটনা। এই অশান্তির কারনে প্রায়ই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে হাট বাজার। ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষা ব্যবস্থা। আতঙ্কে স্কুল কলেজমুখী হতে পারচ্ছে না ছাত্রছাত্রীরা। সামনেই পুজো, আর এই অশান্তির কারনে ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্থ। পরিস্থিতি এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে সন্ধ্যা হলেই বাড়ি থেকে বেরোতে পারচ্ছে না স্থানীয় বাসিন্দারা। রাজনৈতিক দলের মদতপুষ্ঠ দুষ্কৃতীরা ভয়ের পরিবেশ তৈরি করে রেখেছে ব্লকের বিভিন্ন গ্রামে। পরিস্থিতি এতটাই ভয়াবহ মাঝে মধ্যেই দুষ্কৃতীরা বাইক নিয়ে এসে বোমা ফাটিয়ে বন্দুক উচিয়ে ভয়ের পরিবেশ সৃষ্টি করছে এলাকায়। এর ফলে বিপর্যস্ত হচ্ছে জনজীবন।

এই পরিস্থিতিতে শনিবার কোচবিহার সদর মহকুমা শাসকের করণে সর্বদলীয় বৈঠক সম্পন্ন হয়। এই বৈঠক থেকে শান্তির পরিবেশ তৈরির লক্ষে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। কোনও রাজনৈতিক দলের কার্যালয় জোর খাটিয়ে দখল করা যাবে না, দখল হয়ে যাওয়া কার্যালয় গুলি নিদিষ্ট দলকে ফিরিয়ে দিতে হবে। রাজনৈতিক কর্মসূচী গ্রহণ করার ক্ষেত্রে সমস্ত দলকেই প্রশাসনিক অনুমতি বাধ্যতামূলক।

এদিনের এই বৈঠক প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা পুলিশের ডিএসপি (ক্রাইম) সমীর পাল বলেন, ১ নং ব্লক জুড়ে অশান্তি এড়াতে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত হয় এগুলি মেনে নেবার জন্য আমরা রাজনৈতিক দল গুলির কাছে অনুরোধ রেখেছি। শান্তি স্থাপনের রাজনৈতিক দলগুলির সহযোগিতা কামনা করেছি।

সদর মহকুমা শাসক সঞ্জয় পাল বলেন, সামনেই পুজো ও মহরম, উৎসবের দিনগুলি কোচবিহারের মানুষের শান্তিতেই কাটুক। তাই আমরা চাই কোচবিহারের ১নং ব্লক জুড়ে ফিরে আসুক শান্তির পরিবেশ। এই হিংসা থামাতে আমরা সাধারন মানুষ ও রাজনৈতিক দলের সহযোগিতা চাইছি।

এই বৈঠকে উপস্থিত বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরাও সহমত পোষণ করেন। এবিষয়ে কোচবিহার দক্ষিন কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক মিহির গোস্বামী বলেন, দক্ষিন বিধানসভা কেন্দ্র জুড়ে শান্তি সম্প্রীতি ও সংহতি পরিবেশ তৈরি করতে প্রশাসনিক স্তরে সর্বদলীয় বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছিলাম। সেই আবেদন গ্রহণ করে এদিনের এই বৈঠক হয়। আমরা চাই একটা শান্তির পরিবেশ তৈরি হোক এই বিধানসভা কেন্দ্রের কোচবিহার ১ নং ব্লকে।