ফের শিরোনামে বিশাখাপত্তনম, ক্রেন ভেঙ্গে নিহত ১১ শ্রমিক

49

ওয়েব ডেস্ক, ১ জুলাইঃ করোনা আবহের মাঝে ফের বড়সড় দুর্ঘটনার কবলে বিশাখাপত্তনম। জানা গিয়েছে, হিন্দুস্তান শিপইয়ার্ডে ক্রেন ভেঙে ১১ জনের মৃত্যু হল শনিবার দুপুরে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন কমপক্ষে দু’জন। শ্রমিকের। ভাঙা ক্রেনের নিচে আরও কয়েকজন আটকে রয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। শুরু হয়েছে উদ্ধারকার্য।

সূত্রের খবর, হিন্দুস্তান শিপ ইয়ার্ড লিমিটেডের ওই ক্রেনটি অনেক পুরনো। ভারীত মালপত্র ওঠানো নামানোর জন্য ব্যবহার করা হত ক্রেনটি। দুর্ঘটনার পর ক্রেনটির স্বাস্থ্য ও তার পরিচর্যা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। প্রসঙ্গত, লকডাউনের পরই বিশাখাপত্তনমের একটি কারখানা থেকে গ্যাস লিক করে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল।

জানা গিয়েছে, এই ১১ জনের মধ্যে ৫ জন শিপইয়ার্ডের স্থায়ী কর্মী।বাকিরা ঠিকেদারি সংস্থার কর্মী। তবে সূত্রের খবর, মৃতের সংখ্যা দু’অঙ্ক ছুঁতে পারে শীঘ্রই। এর আগেও বিশাখাপত্তনমে গত দু-তিন মাসে একাধিকবার বিভিন্ন ধরনের দুর্ঘটনা ঘটেছে। গ্যাস লিকের ঘটনা তার মধ্যে অন্যতম। এই ধরনের ঘটনায় রাজ্যে গোটা ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি, এর আগে ক্রেন ভেঙে পড়ার মত ঘটনাও ঘটেছে। যাতে কয়েক জনের মৃত্যু হলেও এত জনের মৃত্যু হয়নি। সেদিক থেকে দেখলে এই ঘটনা নিঃসন্দেহে তাৎপর্যপূর্ণ বটে।

এক সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, ক্রেনটি বহু পুরনো। সেই ক্রেন দিয়েই ভারী মাল তোলা হত। লকডাউনের মাঝে কি পরিচর্যার অভাব হয়েছিল? অনেকক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, লকডাউন চলাকালীন বহু কারখানা যন্ত্রাংশের পরিচর্যা হয়নি ঠিকমতো। ফলে কারখানা খোলার পর বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটছে। এক্ষেত্রেও তেমন কিছু হয়েছে কি না তা তদন্ত করে দেখা হবে।