শব্দবাজি ফাটানোর অভিযোগ গ্রেপ্তার ১৭৯ জন

200

কলকাতা, ২৮ অক্টোবরঃ রাজ্যে শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রন করতে বাজি ফাটানো নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পাশাপাশি বলা হয়েছে, কেউ যদি নিষিদ্ধ বাজি ফাটান তাহলে পরিবেশ রক্ষা আইন অনুযায়ী অপরাধীর সর্বাধিক ৫ বছরের জেল এবং ১-৫ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হবে।

কালীপুজোর আগে থেকেই চলছিল কলকাতা পুলিশ ও দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের তরফ থেকে শব্দবাজি কম ফাটানোর প্রচার। দিনরাত জুড়ে চলেছিল পুলিশের নাকা চেকিং; বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল অসংখ্য শব্দবাজি। অবশেষে কাজে এল সেই প্রচেষ্টা। গতবছরের থেকে এবারের কালীপুজোয় শব্দবাজি ফেটেছে তুলনামূলক কম।

রবিবার রাত ১১ টা পর্যন্ত শব্দবাজি ফাটানোর অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন ১৭৯ জন। বাতাসে দূষণের পরিমাণ মাত্রা না ছাড়ালেও দিল্লির পরই হয়েছে তার স্থান। রাত বাড়ার সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে শব্দবাজির তাণ্ডব। পর্ষদের আটটি দল কলকাতা ও শহরতলির বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখে তাঁদের রিপোর্টে জানান, সবথেকে বেশি দূষণ বাগবাজারে।

ভিক্টোরিয়া ও বিধাননগরে দূষণ অন্য জায়গার থেকে কম। বালিগঞ্জ, যাদবপুর, রবীন্দ্র সরোবর, রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে দূষণ হলেও তা গতবারের থেকে কম। নিষেধাজ্ঞা উড়িয়ে কলকাতা বিমানবন্দর চত্বরের আশপাশে দেখা গিয়েছে কিছু ফানুস উড়তে।

কালীপুজোর আগেই দূষণে হাঁসফাঁস করছিল কলকাতা। আশঙ্কা ছিল, কালীপুজোয় বাজি ফাটার পর দূষণ ঠিক কতটা মাত্রা ছাড়াবে? এ বিষয়ে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের রিপোর্ট বলছে গতবারের থেকে এবার দূষণের মাত্রা কিছুটা কম।