মালদায় আদিবাসী মহিলাদের হেনস্তা কাণ্ডে গ্রেপ্তার ৫

0
82

খবরিয়া ২৪ নিউজ ডেস্ক, ২২ জুলাই, মালদা: মালদায় দুই মহিলাকে বিবস্ত্র করে মারধরের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করলো বামনগোলা থানার পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে তিনজন মহিলা, দুজন পুরুষ রয়েছেন। তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে যে ভিডিও ভাইরাল হয়েছে তাতে আরো দুজনকে দেখা যাচ্ছে তাদেরও সন্ধান চালাচ্ছে বামনগোলা থানার পুলিশ।

গ্রেপ্তার হওয়া পাঁচজনকে মালদা জেলা আদালতে তোলা হবে তারপর রিমান্ডে নেওয়া হবে এবং তারপর আরো তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানালেন জেলা পুলিশ সুপার প্রদীপ কুমার যাদব।

এদিকে মালদার ঘটনার সত্যতা যাচাই করতে শীঘ্রই মহিলা কমিশনের সদস্যরা মালদায় যাবেন বলে জানিয়েছেন চেয়ারপার্সন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই ঘটনা নিয়ে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করেছে মহিলা কমিশন। পুলিশের কাছ থেকে চাওয়া হয়েছে ভাইরাল হওয়া ভিডিও ফুটেজটিও।

সূত্রের খবর, মালদার বামনগোলা থানার পাকুয়াহাটে ভরা বাজারে পকেটমার সন্দেহে দুই মহিলাকে নগ্ন করে রাস্তায় বেধড়ক মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। মারা হয়েছে জুতো দিয়েও। যদিও আদৌও ওই মহিলা কোনও চুরি বা ছিনতাইয়ের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন কিনা সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে মহিলা কমিশন।

এদিকে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই তীব্র শোরগোল শুরু হয়ে গিয়েছে রাজনৈতিক মহলেও। বাংলার সরকারকে কাঠগড়ায় তুলে তোপ দেগেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর। রাজনৈতিক রং না দেখে দোষীদের শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী।

শনিবার সাংবাদিক সম্মেলনে এই ঘটনার ব্যাখ্যা দেন মন্ত্রী শশী পাঁজা। তিনি বলেন, “দুই মহিলার ঝামেলাকে বিজেপি রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে।” শশীর ওই বক্তব্যর সমালোচনা করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। তিনি অভিযোগ করেছেন, বিষয়টি লঘু করে দেখানোর চেষ্টা করছে তৃণমূল। মন্ত্রী শশী পাঁজা অসংবেদনশীল মন্তব্য করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here