ভুয়ো সেনাকর্মীর খোঁজ মিললো বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর

187

আব্দুল হাই, বাঁকুড়াঃ এবার ‘ভূয়ো’ সেনা কর্মীর খোঁজ মিললো বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরে। নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ঐ ‘ভূয়ো সেনা কর্মী’কে আটক করেছে। যদিও বছর সতেরর ঐ কিশোর নাম পুলিশের তরফে প্রকাশ করা হয়নি।

পুলিশ সূত্রে খবর, ঐ কিশোর নিজের নামে সেনাবাহিনীর ‘নকল’ পরিচয়পত্র তৈরী করে পরিচিতজনদের দেখায়। এমনকি সেনাবাহিনীর পোশাক পরে ফেসবুকেও ছবি পোষ্ট করে। পরে তার এক বন্ধুর দাদা জনৈক সৌরভ সাহার নামেও একই ধরণের কার্ড তৈরী করে। এমনকি কাজে যোগ দেওয়ার আগে সেনাবাহিনীর অফিসে ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা দিতে হবে বলে জানায়।  পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনার তদন্তে নেমে সেনাবাহিনীর ‘জাল’ পরিচিতিপত্র তৈরীতে সহায়তা করার জন্য প্রসেনজিৎ মিস্ত্রী নামে এক স্টুডিও মালিককে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। একই সঙ্গে সেনাবাহিনীর পোশাক, দু’টি জাল পরিচিয়পত্র ও একটি মোটর বাইক পুলিশ আটক করেছে। একই সঙ্গে নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বলে জানানো হয়েছে।

পুলিশের হাতে ‘আটক’ ঐ কিশোরের বাবা বলেন, তার ছেলে সেনাবাহিনীতে চাকরী করেনা, এনসিসি প্রশিক্ষণ নিত। একই সঙ্গে কার্ড ছাপিয়ে তার ছেলেকে ‘ফাঁসানো’ হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

পুলিশ সুপার ধৃতিমান সরকার এবিষয়ে বলেন, আমরা খবর পাই এক কিশোর সেনাবাহিনীর পোশাক পরে ‘আর্মি’ স্টীকার সাঁটানো বাইক নিয়ে ঘুরছে। এমনকি সামাজিক মাধ্যমেও সেই ছবি দিয়েছে। ঘটনার তদন্তে নেমে জানতে পারা যায়, একটি মেয়ের সাথে তার সম্পর্ক ছিল। সম্পর্ক দৃঢ় করার জন্য সে এই কাজ করেছে। সে নিজের ও ঐ মেয়েটির ভাইয়ের নামেও একটি জাল পরিচিতিপত্র তৈরী করে। যে দোকান থেকে ঐ জাল পরিচিতিপত্র তৈরী করা হয়েছিল তার মালিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। এবিষয়ে তদন্ত চলছে বলে তিনি জানান।