মাথাভাঙা মহাকুমার হাসপাতাল এ অত্যাধুনিক ব্যবস্থা চালু

97

কাজল রায়, মাথাভাঙাঃ মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর চিকিৎসা পরিষেবা নিয়ে তাদের আত্মীয়দের সঙ্গে নিবিড় ভালো যোগাযোগের লক্ষ্যে পাবলিক অ্যাড্রেসাল সিস্টেম চালু হলো হাসপাতলে। মহাকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর আত্মীয়দের সঙ্গে খুব সহজেই যোগাযোগ হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরিষেবা মুলক প্রচার এবং জনসাধারণের সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে হাসপাতালে পাবলিক অ্যাড্রেসাল সিস্টেম চালু হলো বলে মহাকুমা হাসপাতালে সুপার ডঃ দেবদীপ ঘোষ জানান।

মাথাভাঙ্গা হাসপাতালে তিনটি তলা রয়েছে। এই তিনটি তলায় সমস্ত ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রোগীদের স্বাস্থ্যবিষয়ক প্রয়োজনে একুশটি সাউন্ড বক্স এর মাধ্যমে তাদের আত্মীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। এই ব্যবস্থা আগে মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতালেই ছিল না। এই প্রথম চালু হলো বলে জানান মাথাভাঙা মহাকুমাহাসপাতালের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডক্টর বিশ্বজিৎ সাহা। তিনি আরো বলেন, শিশু বিভাগের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার পক্ষ থেকে বেশকিছু কার্টুন এবং বিভিন্ন ছবি লাগানোর হয়েছিল এর আগেই।

মাথাভাঙ্গা মহকুমা শাসক অচিন্ত্য কুমার হাজরা বলেন এই পাবলিক অ্যাড্রেসাল সিস্টেম আত্তন্ত ভালো উদ্যোগ। এর ফলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে রোগীর আত্মীয়দের যোগাযোগের সুবিধা হবে সেইসঙ্গে হাসপাতালে যেখানে সেখানে আবর্জনা ফেলা, পানু গুটকা খেয়েই পিক ফেলা বন্ধ করতে ধারাবাহিক প্রচার চালানো হবে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর মন ভালো রাখতে মাঝেমধ্যে হালকা সাউন্ড সুন্দর মিষ্টি সংগীত বাজানোর পরিকল্পনা  হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের রয়েছে। এই উদ্যোগটি প্রশংসনীয় বলে জানিয়েছেন বিভিন্ন রোগীর আত্মীয় থেকে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।

উই ফর ইউ এর পক্ষে রতন সাহা ও হংসরাজ সরকার এবং আরেকটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার পক্ষে প্রদীপ্ত দাম, সঞ্জয় বর্মন বলেন, মাথাভাঙা মহাকুমার হাসপাতাল যে নতুন ব্যবস্থা চালু করেছে তার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে আমরা সাধুবাদ জানাই। এই নতুন ব্যবস্থা অন্য কোন হাসপাতালে রয়েছে কি না অনেকেরই জানা নেই।