করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কায় ভর্তি এক যুবক উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে

366

বিশ্বজিৎ সরকার, শিলিগুড়িঃ করোনার ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা নিয়ে শুক্রবার একজন উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি হল। ওই যুবকের নাম মহম্মদ শফিকুল রহমান (৩১)। সে উত্তর দিনাজপুর জেলার ডালখোলার পূর্ব প্রসাদপুর এলাকার বাসিন্দা।

পরিবার সূত্রে জানা যায় গত ৩ বছর ধরে উচ্চ শিক্ষার জন্য সিঙ্গাপুরে কেমিস্ট্রিতে পিএইচডি করছিলেন। গত ১০ দিন আগে সিঙ্গাপুর থেকে বিমান পথে ভারতে এসেছিলেন। সেখান থেকে আসার পর থেকে জ্বর, সর্দি, মাথাব্যথা মত সমস্যায় ভুগছিলেন। তার শারীরিক অবস্থা অবনতি হলে। চিকিৎসার জন্য মেডিক্যাল কলেজে আসেন। শুক্রবার উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে মেডিসিন আউটডোরে ডাক্তারকে সমস্ত সমস্যা খুলে বলেন। আউটডোরে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তার সিঙ্গাপুরের ভ্রমণ সংক্রান্ত তথ্য জানতে পেরে। মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসকরা কোনও রকমের ঝুঁকি না নিয়ে শফিকুলকে সরকারি আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তির করার সিদ্ধান্ত নেয়।

অন্যদিকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকায় কোনও রকমের খামতি রাখতে চায় না মেডিক্যাল কর্তৃপক্ষ। আইসোলেশন ওয়ার্ডের বারংবার পরিদর্শন করতে গিয়েছেন মেডিসিন বিভাগের প্রধান চিকিৎসক। ৬ বেড বিশিষ্ট আইসোলেশন ওয়ার্ডে প্রবেশ করতে হলে চিকিৎসক সহ নার্সরা অত্যাধুনিক পরিধান পড়ে ঢুকচ্ছেন।

এই বিষয়ে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল সুপার ডঃ কৌশিক সমাজদার বলেন আমরা এক জনকে পর্যবেক্ষণের জন্য আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করেছি। তার সর্দি জ্বর হয়েছে। যেহেতু তার সিঙ্গাপুর ভ্রমণ সংক্রান্ত তথ্য থাকায়। আমরা কোনও রকমের ঝুঁকি নিতে চাই না। যদিও এখনও পর্যন্ত ভয়ের কোনও বিষয় নেই। রোগী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রয়েছে তা এখনও ধরা পড়েনি। আমরা রোগীর ঠ্রোট সোয়াপ ও রক্তের নমুনা নিয়ে পরীক্ষার জন্য পাঠাবো।

যদিও সেটা এন আইবি পুনে কিংবা কলকাতার নাইসেটে পাঠানো হবে তা এই মুহূর্তে বলতে পারছি না। আমরা নমুনা সংগ্রহ করে ডেপুটি সিএমওএইচ দপ্তরে পাঠাবো। সেখান থেকে তারা নির্দিষ্ট ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। এটির ফলাফল ২-৪ দিনের মধ্যে চলে আসবে। যদিও আমরা তাকে সন্দেহ করেছি।