সরকারি কর্মীকে অপহরণ করে টাকা চাওয়ার অভিযোগ, ধৃত ১

83

ওয়েব ডেস্ক, ৩ জানুয়ারিঃ এক সরকারি কর্মীকে অপহরণ করে তাঁর বাড়িতে ফোন করে টাকা চাওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার এক ব্যক্তি।ঘটনাটি ঘটেছে, মেমারি থানার সাতগেছিয়া সংলগ্ন এলাকায়। জানা গেছে, শ্রীমন্ত ঘোষ নামে ওই ব্যক্তি জামালপুরের আবুজহাটি-২ পঞ্চায়েতে স্কিলড্‌ টেকনিক্যাল পার্সন পদে চাকরি করেন।

গত সোমবার তিনি তিনি বাড়ি থেকে তাঁর কর্মস্থলের উদ্দেশে বের হন। বেলা ১২টা নাগাদ জামালপুর থানারই কোলসরা গ্রামের কাছ থেকে কয়েকজন তাঁকে অপহরণ করে বলে অভিযোগ। বিকেল ৫টা ১৫ নাগাদ অপহৃতের বাবার কাছে একটি ফোন আসে। ফোনের অপর প্রান্ত থেকে জানানো হয়, শ্রীমন্তকে গোপন জায়গায় আটকে রাখা হয়েছে। শ্রীমন্তের দাদার কাছে টাকা পায় অপহরণে জড়িতরা। সেই টাকা আদায় করতেই শ্রীমন্তকে অপহরণ করা হয়েছে বলে দাবি করে অপহরণকারীরা। ৫ লক্ষ টাকা পাঠালে তবেই শ্রীমন্তকে মুক্তি দেওয়া হবে বলে জানায় অপহরণকারীরা। এদিকে শ্রীমন্তের অপহরণের খবর জেনে ও অপহরণকারীদের দাবি শুনে হতচকিত হয়ে পড়ে তাঁর পরিবার। উদ্বিগ্ন হয়ে গোটা ঘটনার কথা জামালপুর থানায় জানান শ্রীমন্তর বাবা সত্যনারায়ণ ঘোষ। তড়িঘড়ি ঘটনার তদন্ত শুরু করে জামালপুর থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শ্রীমন্তর দাদা গাড়ি কেনা-বেচার ব্যাবসায় জড়িত। ধৃত আব্বাসও একই কারবার করে।শ্রীমন্তর দাদা জয়ন্তর কাছ থেকে কিছু টাকা পায় আব্বাস। সেই টাকা আদায়ের জন্যই শ্রীমন্তকে অপহরণ করা হয়েছে।

জামালপুর থানার এক অফিসার জানান, অপহৃতকে কোনও গোপন জায়গায় আটকে রাখা হয়েছে। ধৃতকে হেফাজতে নিয়ে অপহৃতকে উদ্ধারের জন্য তল্লাশি চালানো হবে। অপহৃতের হদিশ পেতে এবং অপহরণে জড়িত বাকিদের ধরতে ধৃতকে ১৪ দিনের জন্য পুলিশি হেফাজতে নিতে চেয়ে আদালতে আবেদন জানান তদন্তকারী অফিসার মীর মুজিবুর রহমান। তবে ধৃতে ২ দিনের পুলিশি হেফাজত মঞ্জুর করেন ভারপ্রাপ্ত সিজেএম সোমনাথ দাস।