দুর্গা পূজার শেষ হতেই মা ভান্ডানীর পূজা শুরু, মাথাভাঙায় পূজার সূচনা করলেন এনবিএসটিসির চেয়ারম্যান

73

কাজল রায়, মাথাভাঙ্গাঃ শারদ উৎসব শেষ হয়ে যাওয়ার পরে প্রতিবছরের মতো এবছরও শুরু হল উত্তরবঙ্গের অন্যতম ভান্ডানী পূজা। আজ মাথাভাঙ্গা ১ নম্বর ব্লকের বিভিন্ন স্থানের পাশাপাশি গোলকগঞ্জ চৌপতি সার্বজনীন ভান্ডানী পূজা শুরু হয়। ওই পূজার আনুষ্ঠানিক সূচনা করেন উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার চেয়ারম্যান পার্থপ্রতিম রায় এবং কোচবিহার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান হিতেন বর্মন। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক সাবলু বর্মন, গোলকগঞ্জ ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক কেশব চন্দ্র বর্মন, বিশিষ্ট সমাজসেবী পরেশ বর্মন, দেবাশিস মজুমদার প্রমুখ।
ভান্ডারী পূজা উদ্যোক্তাদের পক্ষে মনোজ বর্মন বলেন, “আমাদের এবছর দশম বার্ষিক ভান্ডানী পূজা। করোনা আবহে মণ্ডপ শয্যা সহ অন্যান্য খরচে কাটছাঁট করে সরকারি বিধি নিষেধ মেনে পূজা করা হচ্ছে।”
কথিত রয়েছে, মা দুর্গা বাপের বাড়িতে পূজা নিয়ে যখন ফিরছিলেন, তখন জঙ্গলের বাসিন্দারা মায়ের কাছে তাঁদের পূজা নেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন। সেই আবেদনে সারা দিয়ে মা দুর্গা একদিন থেকে জঙ্গলের বাসিন্দাদের পূজা নিয়েছিল। সেই থেকেই এই পূজার প্রচলন। উত্তরবঙ্গের বেশ কিছু জেলায় মা ভান্ডানীর পূজা বলে পরিচিত।