রাজধানী সফরের পর এবার বাণিজ্যনগরীর পথে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

59

ওয়েব ডেস্ক, ২৫ নভেম্বরঃ রাজধানী সফরের পর এবার বাণিজ্যনগরীর পথে  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চলতি মাসের শেষদিন অর্থাৎ ৩০ নভেম্বর মুম্বই যাবেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বর্তমানে চার দিনের দিল্লি সফরে রাজধানীতে রয়েছেন তিনি। আজ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাসভবনে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন মুখ্যমন্ত্রী। বৈঠক শেষে বেরিয়েই মুখ্যমন্ত্রী জানান, ৩০ নভেম্বর কলকাতা থেকে মুম্বইয়ের উদ্দেশ্যে পাড়ি দেবেন তিনি। ১ তারিখ উপস্থিত থাকবেন একটি বাণিজ্য সম্মেলনে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এবারের মুম্বই সফরের উদ্দেশ্য বাণিজ্য সম্মেলনই। সেখানে ওয়াইপিও শিল্প সম্মেলনে অংশ নেবেন তিনি।

অনেকদিন আগেই বণিকসভার পক্ষ থেকে মমতাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। এবার তাঁদের ডাকে সাড়া দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। আজ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ সেরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আগামী ৩০ তারিখ আমি মুম্বই যাব। সেখানে ওয়াইপিও শিল্প সম্মেলনে অংশ নেব। আমাকে সেখানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।“ তবে, মুম্বই গিয়ে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে ও বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা শরদ পাওয়ারের সঙ্গে দেখা করবেন তিনি। আর উদ্ধব ও শরদের সঙ্গে মমতার সাক্ষাতকে নিয়েই শুরু হয়েছে জোর রাজনৈতিক জল্পনা।

আগামী ২০২৪ সালের লোকসভায় বিরোধী জোটকে বাস্তবায়িত করতে এই দুই বলিষ্ঠ নেতার সক্রিয় অংশগ্রহণ অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। সে কারণেই কী তাঁদের সাথে তড়িঘড়ি দেখা করতে চাইছেন তিনি। অন্যদিকে আবার এবারের দিল্লি সফরে এখন সনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেননি তিনি। তাহলে কী কংগ্রেসকে ছাড়াই নিজে বিরোধী জোটকে ঐক্যবদ্ধ করতে চাইছেন মমতা? উঠে আসছে এমনতর প্রশ্নও। তবে, মমতা জানিয়েছেন, উদ্ধব ঠাকরে অসুস্থ ছিলেন সেই কারণেই তাঁর সাথে দেখা করবেন তিনি। সব মিলিয়ে আগামী দিনে বাণিজ্য এবং রাজনীতি উভয় ক্ষেত্রেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুম্বই সফরকে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা।