আফজল গুরুকে “বলির পাঁঠা” করা হয়েছে, বললেন অভিনেত্রী আলিয়ার মা

287

ওয়েব ডেস্ক, ২২ জানুয়ারিঃ ২০০১ সালে সংসদ ভবনের ওপর হামলা চালায় কয়েক জন জঙ্গি। আর সেই ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে ফাঁসির সাজায় দণ্ডিত হয় আফজাল গুরু। সেই ঘটনার পর কেটে গিয়েছে বহু বছর।এরপর মঙ্গলবার আচকাই সেই আফজল গুরুকে নিয়ে একটি টুইট করেন  আলিয়া ভট্ট এর মা এবং মহেশ ভট্ট এর স্ত্রী সোনি রাজদান।

একটি টুইটে সোনি রাজদান আচকাই আফজল গুরুর প্রাণদণ্ড ও সংসদ হামলায় তার নাম জড়ানোকে কটাক্ষ করেন। তিনি টুইট দাবি করেন, যে আফজল গুরুকে গোটা ঘটনায় ‘বলির পাঁঠা’ করা হয়েছে। আর তার মৃত্যু নিয়ে তদন্ত করা হোক।

স্বভাবতই সোনির ওই টুইট নতুন বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। বিশেষ করে, এমন একটা সময়ে, যখন গত ১১ জানুয়ারি জম্মু ও কাশ্মীরের ডেপুটি পুলিশ সুপার দেবিন্দর সিংকে সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই দেবিন্দরই সংসদে জঙ্গি হামলায় জড়িত বলে আফজল গুরু জানিয়েছিলেন। একটি চিঠিতে আফজল তাঁর আইনজীবীকে লেখেন, সংসদে সন্ত্রাসবাদী হানার ঘটনার সঙ্গে জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশের ডিএসপি দেবিন্দর সিং জড়িত।

প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগেই প্রকাশ্যে এসেথে জঙ্গিদের সঙ্গে ধৃত পুলিশ কর্তা দবিন্দর সিংয়ের ঘটনা। জানা গিয়েছে, কিভাবে দবিন্দর সিংয়ের সঙ্গে যোগ ছিল আফজল গুরুর। একটি চিঠিতে আফজল সেই যোগের কথা স্বীকার করে। সেখানে লেখা ছিল, দবিন্দর সিং আফজলকে আশ্রয় দিয়েছেন। এরপরই আসে সোনি রাজদানের টুইট। প্রশ্ন ওঠে, আফজালকে ‘বলির পাঁঠা’ তৈরি করা হচ্ছে না?