ফের বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র ব্যাপক চাঞ্চল্য

23

হুগলি, ১৩ সেপ্টেম্বরঃ ফের বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র ব্যাপক চাঞ্চল্য ছাড়ল এলাকায়। জানা গিয়েছে, রবিবার সকালে গোঘাট স্টেশন সংলগ্ন একটি গাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে গণেশ রায় নামে ওই বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ। যদিও এই ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ছুটে আসে গোঘাট থানার পুলিশ। এবং দেহটিকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ঘটনা ঘিরে সকাল থেকে উত্তপ্ত গোঘাট স্টেশন সংলগ্ন এলাকা।

একাংশের অভিযোগ, প্রথমে পুরুলিয়া তারপরই হুগলি এই ভাবে বিজেপি কর্মীদের বারং বার তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হাতে নিজেদের প্রান হারাতে হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গণেশ রায় নামে ওই বিজেপি কর্মী এলাকায় সক্রিয় কর্মী হিসাবে কাজ করতপ,   পরিবারের সদস্যরা জানাচ্ছেন, শনিবার বিকেল থেকে নিখোঁজ হয়ে যান গণেশবাবু। আজ সকালে স্টেশনের কাছে গাছে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। তাঁর ছেলের অভিযোগ, বাবাকে খুন করে গাছে দেহ ঝুলিয়ে দেওয়ার পিছনে তৃণমূলেরই হাত রয়েছে। যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। গোঘাট থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করতে চলেছে মৃত গণেশ রায়ের পরিবার। ঘটনার পর এলাকার বিজেপি কর্মীরা ক্ষোভে ফুঁসছেন। তাঁরা আরামবাগ-মেদিনীপুর যাওয়ার রাস্তা অবরোধ করেন।

স্বাধীনতা দিবসে পতাকা উত্তোলন নিয়ে বচসার জেরে হুগলির আরামবাগের নতিবপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় খুন হয়ে যান বিজেপি পঞ্চায়েত সদস্য। তা নিয়ে তীব্র রাজনৈতিক উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। প্রতিবাদে পরেরদিন আরামবাগে ১২ ঘণ্টার বনধ ডেকে খুনের বিচারের দাবিতে সরব হয়ে ওঠে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। এরপর ফের আজ গোঘাটের ঘটনা। তবে এই ঘটনার সঙ্গে অনেকেই মিল পাচ্ছেন গত পঞ্চায়েত ভোটের আগে পুরুলিয়ায় তিন বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের।