হরিয়ানাকে নিয়ে প্রবল চাপে বিজেপি,দিল্লিতে জরুরি বৈঠক অমিত শাহের

504

ওয়েব ডেস্ক, ২৪ অক্টোবরঃ হরিয়ানায় বিধানসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হয়েছে গত ২১ তারিখ। আজ বৃহস্পতিবার সকাল আটটা থেকে তার ফল গণনা শুরু হয়ে গেল।  রাজ্যেই এখন ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি। লোকসভা ভোটেও হরিয়ানায় রাজ্যে এক প্রকার গেরুয়া ঝড় বয়ে গিয়েছে। বিশেষ করে হরিয়ানায় লোকসভার দশটি আসনের মধ্যে দশটিতেই জিতেছে বিজেপি। হরিয়ানায় বিজেপি এগিয়ে থাকলেও টক্কর দিচ্ছে কংগ্রেস।

এমতবস্থায় হরিয়ানাতে প্রবল চাপের মুখে বিজেপি। হরিয়ানায় ভোটের রাজনীতিতে চৌতালার উত্থানে কার্যত ঘুম ছুটেছে বিজেপি নেতৃত্বের। এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে জরুরি বৈঠক ডাকলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। জেপি নাড্ডাকে এই বৈঠকে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। জরুরি এই বৈঠকে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহার লাল খাট্টাকে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। দুপুরের মধ্যে দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

মূলত হরিয়ানাতে কেন বিজেপির এই অবস্থা হল তা নিয়েই মূলত আলোচনা হতে পারে এই বৈঠকে। শুধু তাই নয়, আগামীদিনে সেই রাজ্যে বিজেপির রণকৌশল কি হবে তা নিয়েও আলোচনা হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। বেলা সাড়ে বারোটা পর্যন্ত রাজ্যের ৯০ টি আসনের মধ্যে ৩৬ টিতে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি, আর ৩২ টিতে কংগ্রেস।

তবে সবাইকে চমকে দিয়ে কিং মেকারের ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে চলেছে জননায়ক জনতা পার্টি। তারা এগিয়ে ১১ টি আসনে। হরিয়ানায় বিজেপির লক্ষ্য ছিল ৭৫ আসনে জয়। শেষ পর্যন্ত সংখ্যায় কিছু অদলবদল ঘটলেও লক্ষ্যের যে ধারে কাছে পৌঁছনো যাচ্ছে না, তা এখনই স্পষ্ট। এরপরই রাজ্যের নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা তথা হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টরকে দিল্লিতে ডেকে পাঠিয়েছে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব।

অন্যদিকে এই অবস্থায় জননায়ক জনতা পার্টি চিফ চৌতালার কাছে পৌঁছেছে মুখ্যমন্ত্রী পদের অফার। বিজেপিকে রুখতে মুখ্যমন্ত্রী পদ ও কংগ্রেস ছাড়তে তৈরি বলে ইতিমধ্যে জনতা পার্টি প্রধানকে কংগ্রেসের তরফে জানানো হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যদিও এই বিষয়ে এখনই কিছু ভাবতে রাজি নন তিনি।