কোচবিহার খাগড়াবাড়িতে আক্রান্ত জমি আন্দোলনের আরেক নেতা, অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

688

কোচবিহার, ৮ অক্টোবরঃ পাড়ার ক্লাবের দুর্গা প্রতিমা বিসর্জন দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে এক যুবককে মারধরের অভিযোগ উঠল। ঘটনাটি ঘটেছে কোচবিহার ২ নং ব্লকের খাগড়াবাড়ির মহিষবাথান এলাকায়। আহত ওই যুবকের নাম বিকাশ বর্মণ। অভিযোগ খাগড়াবাড়ি মহিষ বাথান এলাকায় জমিজটকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন থেকেই উত্তপ্ত হয়ে আছে। এই জমি আন্দোলনকে কেন্দ্র করে স্থানীয় তৃণমূলের দাপুটে নেতা সজল সরকারের ভাই সুবল সরকারের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ ওঠে। এদিন ওই নেতার ভাই স্থানীয় ওই যুবককে দশমীর বিসর্জন থেকে ফেরার পথে  তার গাড়ি আটকে তাকে বেধড়ক মারধর করে, পাশাপাশি ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে তার গাড়িও।

হাসপাতালের বেডে শুয়ে আহত বিকাশ বর্মণ জানান, পূজা বিসর্জন দেখে ফেরার পথে স্থানীয় টাইগার ক্লাবের সামনে আমার গাড়িকে   আটকে বেধরক মারধর করে, কোপানো হয় হাতে ও পায়েও। আমি বিজেপি করি জন্য এবং জমি আন্দোলনের সাথে যুক্ত থাকার কারনেই আমার উপর এই আক্রমণ চালায় তাঁরা।

ঘটনা প্রসঙ্গে ওই স্থানীয় তৃণমূল নেতারা বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে ওই বিজেপি যুবকর্মী যে অভিযোগ আনছে, তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং সাজানো। বিজেপি মিথ্যা গল্প বানিয়ে এলাকায় কুৎসা রটানোর চেষ্টা করছে। এটা আসলে ওই যুব কর্মীর পাড়াগত গোলমালের ফল।

প্রসঙ্গত, বিজেপি যুব মোর্চার নেতা তথা জমি আন্দোলনের অন্যতম নেতা দীপঙ্কর দে অষ্টমী রাতে কোচবিহার ২ নং ব্লকের পুন্ডিবাড়ি এলাকায় বাইক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়। যদিও দীপঙ্করের এই পথ দুর্ঘটনার কথা মানতে নারাজ বিজেপি নেতাকর্মীরা। তাঁরা মনে করছেন জমি আন্দোলনের সাথে যুক্ত থাকার কারনে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাকে হত্যার চেষ্টা করেছে এই অভিযোগ করার পর পরই জমি আন্দোলনের আরেক নেতাকে মারধরের ঘটনায় এলাকায় চাপা উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।