এখানকার আদিবাসী মানুষ ছাড়া ভারতে যারা আছে তারা সবাই অনুপ্রবেশকারী : অধীর চৌধুরী

1573

কার্ত্তিক গুহ, ঝাড়গ্রাম :- এসটি তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হওয়ার জন্য দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করছে কুড়মি সম্প্রদায়ের মানুষরা। কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরীর পার্লামেন্টে কর্মীদের এসটি তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য আওয়াজ তুলেছিলেন। এতেই কোন সম্প্রদায়ের মানুষেরা আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন অধীর চৌধুরীর কাছ থেকে।

শুক্রবার ঝাড়গ্রাম শহরের ডিএম হলে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় অধীর চৌধুরীকে পার্লামেন্টে কুড়মিদের দাবি জানানোর জন্য সংবর্ধনা জ্ঞাপন করেন “কুড়মি সমাজ”। জঙ্গলমহলের বিশিষ্ট ঝুমুর শিল্পী বিজয় মাহাতো এবং জঙ্গলমহলে ক্রমাগত হাতির হানায় নিহতদের স্মরণে নীরবতা পালন করেন অধীর চৌধুরী। সংবর্ধনা সভা মঞ্চে অধীর বাবুকে মকর পরব উপলক্ষে পিঠে খাওয়ান কুড়মী সমাজের সদস্যরা। মঞ্চে বক্তব্য রাখা কালীন অধীর চৌধুরী কুড়মালি ভাষায় লেখা কবিতা পাঠ করেন।

এদিনের সংবর্ধনা সভায় এসে কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী বলেন, সারাদেশেই অনুপ্রবেশকারী বলে আলোচনা হচ্ছে কথা হচ্ছে। কিন্তু আমি মনে করি এখানকার আদিবাসী মানুষ ছাড়া ভারতে যারা আছে তারা সবাই অনুপ্রবেশকারী।

তিনি আরও বলেন, আমরা বাইরে থেকে এসে আপনাদের জমি দখল করেছি ঘর দখল করেছি সম্পদ দখল করেছি এবং আপনাদের জঙ্গল ছেড়ে দিয়েছি যেখানে হাতি বাঘের সঙ্গে প্রতিদিনই লড়াই হচ্ছে আপনাদের এই জল জঙ্গল জমিন সবই আপনাদের।

পার্লামেন্টে কুড়মিদের এসটি করার বিষয় নিয়ে অধীর বাবু বলেন , আমি পার্লামেন্টে এই বিষয়টি তুলে ধরেছি তার মানে এটি লিপিবদ্ধ হয়েছে। আমি যখন পার্লামেন্টে বলি তখন আমার পাশেই সোনিয়া গান্ধী বসেছিলে তিনি জানতে চেয়েছিলেন এই বিষয়টি কি। তখন আমি বলেছিলাম বাঁকুড়া পুরুলিয়া পশ্চিম মেদিনীপুর ঝাড়গ্রাম এবং ঝাড়খন্ড উড়িষ্যা রাজ্যের বিস্তীর্ণ এলাকায় প্রায় কয়েক লক্ষ কুড়মি মানুষের বাস রয়েছে তারা সিডিউল ট্রাইল সিডিউল হওয়ার দাবী জানাচ্ছেন। তখন সোনিয়া গান্ধী আমাকে বলেছিলেন বিহারের নিতিশ কুমার ও তো কুড়মি। আমি বলেছিলাম ওরা হচ্ছে ওবিসি এবং কিন্তু এখানকার কুড়মিরা সিডিউল ট্রাইব হওয়ার অধিকার চাইছেন।

মঞ্চে পিঠা খেয়ে তার প্রশংসায় অধীর বলেন, এই মকরসংক্রান্তি এলে পিকের কথা মনে পড়ে কিন্তু এবছর পিঠে পায়নি। কিন্তু ঝাড়গ্রাম এসে এই বোন দের হাতে পিঠে পেয়েছি। তাই এমনি পিঠে নয় গরম গরম পিঠে খেয়েছি ফলে আপনাদের হয়ে কাজ করার তাগিদে আমার আরো বেড়ে গেছে।