বিমান দুর্ঘটনা নিয়ে তদন্তদের নির্দেশ কেন্দ্রের, সবরকম তথ্য সংগ্রহের জন্য সিআরপিএফ-কে নিয়োগ

66

ওয়েব ডেস্ক, ৮ আগস্টঃ করোনা আবহের মাঝে গতকাল রাতে কেরলের বিমান দুর্ঘটনায় নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় সরকার। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যে ইতিমধ্যেই প্লেনের ককপিট থেকে সবরকম তথ্য সংগ্রহের জন্য সিআরপিএফ-কে নিয়োগ করা হয়েছে। তাঁরাই ফ্লাইট কল হিস্ট্রি, ব্ল্যাকবক্স, কল রেকর্ডার প্রভৃতি উদ্ধার করে ব্যুরোর হাতে তুলে দেওয়া হবে। এই ঘটনার পর রাতের দিকেই কেন্দ্রীয় বিমান মন্ত্রক এয়ার ইন্ডিয়া ও ডিজিসিএ-এর কর্তারা এক উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে বসেছেন। পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে তা নিয়েই এই বৈঠক বসে। রাত পর্যন্ত এই বৈঠক চলছে বলেই জানা গিয়েছে।

এদিন রাতে কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী বলেন, কেরলের এই দুর্ঘটনা নিয়ে সরকারি তদন্ত করা হবে। এই নিয়ে এয়ারক্র্যাফ্ট অ্যাক্সিডেন্ট ইনভেস্টিগেশন ব্যুরোকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। কী কারণে এই ঘটনা ঘটেছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

দুর্ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই শারজা, দুবাই ও আমিরশাহীতে হেল্পসেন্টার খোলা হয়েছে। দুর্ঘটনার কবলে পড়া প্রিয়জনদের সম্পর্কে খোঁজখবর নিতে এয়ারপোর্ট কন্ট্রোল নাম্বার ও হেল্পলাইন নাম্বারে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। এয়ারপোর্ট কন্ট্রোল নাম্বারগুলি হল ০৪৮৩ ২৭১ ৯৪৯৩। এছাড়াও হেল্পলাইন নাম্বার হল, ০৫৬ ৫৪৬ ৩৯০৩, ০৫৪৩০৯০৫৭২, ০৫৪৩০৯০৫৭২।

প্রসঙ্গত, ক্যাপ্টেন দীপক বসন্ত সাথে একটা সময় কাজ করেছেন ভারতীয় বায়ুসেনার। ২২ বছরের লম্বা কেরিয়ারে বহু সম্মান, বহু পুরস্কার জিতেছেন তিনি। এয়ার ইন্ডিয়ায় যোগ দেওয়ার আগেই তাঁকে ভারতীয় বায়ুসেনার তরফে ‘শোর্ড অফ অনার’ সম্মানও পেয়েছেন তিনি। ক্যাপ্টেন সাথে একটা সময় বায়ুসেনার ১৭ নম্বর স্কোয়াড্রনের উইং কম্যান্ডার ছিলেন। যেটিকে কিনা সম্প্রতি রাফালে ওড়ানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। এ হেন অভিজ্ঞ পাইলটও এই দুর্ঘটনা এড়াতে পারলেন না।