দায়িত্ব পেয়েই কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পরিদর্শনে পার্থ, নিরাপত্তায় জোড়

429

কোচবিহার, ২৫ নভেম্বরঃ দায়িত্ব পাওয়ার পর এদিন প্রথম কোচবিহার এমজেএন মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল পরিদর্শন করলেন কোচবিহার জেলা রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান পার্থ প্রতিম রায়। এদিন তিনি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগ, মাতৃমা সহ বিভিন্ন পরিকাঠামো ক্ষতিয়ে দেখেন। খোঁজ নেন মেডিক্যাল কলেজের নিরাপত্তার বিষয় নিয়েও। পরে তিনি সাংবাদিকদের জানান, কোচবিহার এমজেএন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগে উন্নত মানের পরিকাঠামো রয়েছে। ‘লেবেল ত্রি’ পর্যায়ের পরিকাঠামোতে শিশুদের সমস্ত রকম চিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও মেডিক্যাল কলেজের নিরাপত্তার জন্য সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো হবে। মাতৃমার  সামনে বাড়ির লোকজনরা রাস্তার উপড়ে বসে থাকেন। সেই কারণে সেখানে একটি শেড নির্মাণ করে সেখানে তাঁদের থাকার ব্যবস্থা করা হবে বলেও পার্থ বাবু এদিন জানান। তিনি বলেন, “ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে স্বাস্থ্য কমিটির একটি বৈঠক করা হবে। এনিয়ে জেলা শাসকের সাথেও কথা হয়েছে। সেখানেই নতুন কিছু পরিকাঠামো গড়ে তোলা নিয়ে আলোচনা করা হবে।”

জেলা হাসপাতাল থেকে মেডিক্যাল কলেজে উন্নীত করা হলেও সাধারণ মানুষ চিকিৎসা পরিসেবা পাচ্ছেন না বলে কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে মাঝে মধ্যেই অভিযোগ শুনতে পাওয়া যায়। শুধু তাই নয়, পর্যাপ্ত সংখ্যক চিকিৎসকও নেই বলে রাজ্যের শাসক দল বিরোধী রাজনৈতিক দল গুলো মাঝে মধ্যেই অভিযোগ করে থাকেন। আর সেই কারণেই রোগীদের সামান্য কারণেই শিলিগুড়িতে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করার ঘটনা দেখতে পাওয়া যায় বলে অভিযোগ রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে ফের পার্থ প্রতিম রায়কে জেলা রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান করে ফিরিয়ে নিয়ে আসার পর সাধারণ মানুষকে চিকিৎসা পাইয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে কতটা ভূমিকা নিতে পারেন, সেটাই এখন  দেখার। যদিও এদিন পার্থ প্রতিম রায় অপর্যাপ্ত চিকিৎসক থাকার বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন। তবে যা রয়েছে, তা দিয়েই মানুষের কাছে সেরা পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি করেছেন।