শাড়াপুল গ্রামীন হাসপাতালে ডেঙ্গু নিয়ে ভর্তি কমপক্ষে ১০ জন

15

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪পরগনা: রাজ্য যখন ডেঙ্গু নিয়ে তোলপাড় ঠিক তার উল্টো ছবি ধরা পরলো বসিরহাট মহকুমা সীমান্তবর্তী স্বরূপনগর শাড়াপূল গ্রামীণ হাসপাতালে। গত ১০ দিন ধরে জ্বর, মাথা ব্যাথা, বমি, নিয়ে ভর্তি আছে হাকিমপুরের বাসিন্দা শাওন সাহাজি(৭)। ওই শিশুর বাবা  বাবু সাহাজির অভিযোগ, হসপিটালে ডাক্তার ঠিক মত আসে না। হসপিটালে কোন মশারির ব্যবস্থার নেই, নেই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন। একজন নার্স আছে তাকে বলাতেই, প্রথমে বলে আধঘন্টা দেরী হবে। তারপরে বলে এক দেড় ঘন্টা দেরী হবে। তখন বাচ্চার বাবা বলে আমার বাচ্চার শরীর খুব ভালো না। ওর যদি কিছু হয়ে যায় এর দায় কে নেবে ?  নার্সের উত্তর, বাচ্চা মরে গেলে ফেলে দেবেন। এই হচ্ছে শাড়াপুল গ্রামীণ হাসপাতালে পরিস্থিতি। রাজ্য সরকার স্বাস্থ্যের উপর নজর দিয়েছে, বিশেষ করে ডেঙ্গু নিয়ে। তখনই একজন নার্সের মুখে থেকে এরকম আচরণ রোগীর আত্মীয়রা মেনে নিতে পারছেন না।

স্বরূপনগর এলাকাবাসী দাবি, অবিলম্বে শাড়াপুল গ্রামীণ হসপিটালের স্বাস্থ্য পরিষেবা ভালো করতে হবে, ভালো ডাক্তার আনতে হবে,তা না হলে আগামী দিনে বৃহত্তম আন্দোলনে যাবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে গ্রামের মানুষ। যেকোনো ছোট দুর্ঘটনা ঘটেলে সঙ্গে সঙ্গে সেই রোগীকে বসিরহাট ও কলকাতায় রেফার করে দেয় বলে এমন টাই অভিযোগ গ্রামের মানুষের।

এরপর ডাক্তারবাবুরা বলেন, আমাদের এখানে এরকম পরিষেবা নেই। কিন্তু প্রশ্ন সাধারণ মানুষ খেটে খাওয়া মানুষ তাদের পয়সা নেই, তারা গাড়ি ভাড়া করে রোগীকে কলকাতা নিয়ে যাবার সমর্থ নেই সেই সব মানুষদের কথা একটু ভাবুক প্রশাসন থেকে স্বাস্থ্য দপ্তর।