ঝড় ও ঝড় পরবর্তীকালে স্বাস্থ্য পরিষেবা বহাল রাখতে তৎপর বসিরহাট স্বাস্থ্য জেলা

20

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনাঃ ইয়াশ সাইক্লোনে বিপর্যস্ত হতে পারে বসিরহাট মহকুমা। বিশেষ করে বসিরহাট মহকুমার সুন্দরবনের হিঙ্গলগঞ্জ, হাড়োয়া, সন্দেশখালি ১ ও ২ নং ব্লক সহ নদী বেষ্টিত একাধিক এলাকায় বিপর্যয় নেমে আসার আশঙ্কা করা হচ্ছে। আয়লা, আম্ফান, বুলবুলে সুন্দরবনের এই বিস্তীর্ণ এলাকার জনজীবন স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল। ব‍্যাহত হয়েছিল চিকিৎসা তথা স্বাস্থ্য পরিষেবাও। তাই করোনাকালে এই ঝড়ে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ব‍্যপারে ঝুঁকি নিতে রাজি নয় বসিরহাট স্বাস্থ্য জেলার আধিকারিকরা।

 করোনা আক্রান্তদের সঠিক চিকিৎসা পরিষেবা দিতে প্রয়োজন বিদ‍্যুৎ। চালাতে হবে অক্সিজেন পরিষেবা, ফ্রীজে মজুদ রাখতে হবে ভ‍্যাক্সিন। সেইজন্য অবিরাম বিদ্যুৎ পরিষেবার প্রয়োজন। কিন্তু আগে দেখা গিয়েছে ঝড় ও ঝড় পরবর্তীকালে বেদ‍্যুতিন তার ছিঁড়ে, খুঁটি ভেঙে ও তারে গাছ ভেঙে পড়ায় দিনের পর দিন সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকার হাসপাতাল গুলি বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়তো। তাই এবার আগাম প্রস্তুতি সারলো স্বাস্থ্য দপ্তর।

বসিরহাট স্বাস্থ্য জেলার মুখ‍্য স্বাস্থ্য  আধিকারিক দেবব্রত মুখার্জি জানান, সন্দেশখালি, হিঙ্গলগঞ্জ, টাকি ও মিনাখাঁর গ্রামীণ হাসপাতাল গুলির পাশাপাশি স্বরূপনগর, বাদুড়িয়া, বসিরহাটের একাধিক স্বাস্থ‍্য কেন্দ্র ও উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলিতে বাড়তি জেনারেটর ও ব‍্যাটারির ব‍্যবস্থা করা হয়েছে। একাধিক হাসপাতালে মজুদ রাখা হয়েছে অতিরিক্ত তার ও ট্রান্সফর্মার সহ বহু বৈদ্যুতিন সরঞ্জাম। যাতে ঝড় ও ঝড় পরবর্তী কালে করোনার চিকিৎসায় কোনো ব‍্যাঘাত না ঘটে।