প্লাস্টিক বর্জনের প্রচারে করলেন বসিরহাট পৌরসভা

21

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: প্লাস্টিক নিষিদ্ধ ঘোষণা করলে এবার বসিরহাট পৌরসভা। বসিহাট মহাকুমার বাদুড়িয়া, টাকি ও বসিরহাট, তিনটি পৌরসভা রয়েছে। তাদের মধ্যে প্রথম শুরু করল বসিরহাট পৌরসভা। এবার প্লাস্টিক বর্জন ও ডেঙ্গু-প্রতিরোধ, জল অপচয় বন্ধ করা। গাছ বাঁচানোর, কর্মসূচি নিল। তিনটি প্রাইমারি স্কুলের ছাত্র ছাত্রী থেকে অভিভাবক, অভিভাবিকা শিক্ষক-শিক্ষিকারা।

নৈহাটি থেকে এক বর্ণাঢ্য র‍্যলির মধ্য দিয়ে শুরু হলো। স্বয়ং বসিরহাট পৌরসভার চেয়ারম্যান তপন সরকার, সমাজসেবী সুরেশ মন্ডলের উদ্যোগে। বসিরহাট পৌরসভার ২৩টি ওয়ার্ডের ইতিমধ্যে প্লাস্টিক বর্জন নির্দেশিকা জারি হয়েছে। প্রতিটি কাউন্সিলরকে এই ধরনের কর্মসূচি নেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। যাতে প্লাস্টিক বর্জন করা, প্লাস্টিকের সামগ্রী ব্যবহার না করা, এবং নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে বাসিন্দাদের সচেতনতা করা। সবমিলিয়ে পথে নামল বসিরহাট পৌরসভা।

পাশাপাশি তিনটি স্কুলের কয়েকশো ছাত্র-ছাত্রী শিক্ষক-শিক্ষিকা এই অভিযান শুরু হল। বসিরহাট এর ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্য দিয়ে। স্বয়ং চেয়ারম্যান রাস্তার ধারে পড়ে থাকা প্লাস্টিক, নোংরা আবর্জনা, হাতে করে তুলে সেগুলোকে নষ্ট করলেন। এই ধরনের কর্মসূচি নেওয়া হয়। বসিরহাটের পৌরবাসীরা রীতিমত এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে‌ন।

বসিরহাট পৌরসভার চেয়ারম্যান তপন সরকার বলেন, যে শুধু প্লাস্টিক বর্জনের জন্য সচেতন করলে হবে না। আমাদেরকে সচেতন হতে হবে। আমরা যত্রতত্র দোকানে গিয়ে প্লাস্টিকের ক্যারি ব্যাগ চাই। সেইগুলি না নিয়ে। আমরা নিজেরাই কাগজের ব্যাগ, চটের ব্যাগ,সঙ্গে করে নিয়ে গেলে দোকানদার সেই ব‍্যাগের মধ্যে সমস্ত রকম জিনিস আনতে পারবো।

তখন আর প্লাস্টিকের  ক্যারি ব্যাগ  প্রয়োজন হবে না আস্তে আস্তে আমাদের সকলের আগের অভ্যাসটাই ফিরিয়ে আনতে হবে। সবাই মিলে উদ্যোগ না নিলে আগামী প্রজন্মের কাছে, একদিকে জল সংকট। অন্যদিকে পরিবেশ দূষণ হবে, তাই আমাদের, সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে প্লাস্টিক বর্জন করতে।