‘মোদি ও শাহের বাপের জমিদারি নয়’,ক্যা ও এনআরসি নিয়ে বেনজির ভাষায় তীব্র আক্রমন অধীরের

125

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনাঃ ক্যা ও এনআরসি নিয়ে এবার শাহ ও মোদীকে আক্রমণ বিরোধী দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী। এদিন বসিরহাটের এক জনসভা থেকে  চাঁচাছোলা ভাষায় তীব্র আক্রমণ সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

এদিন তিনি আরও বলেন, “আমার নাগরিকত্ব কি তোর বাবা দিয়েছিল ? এরপর বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দাগেন কংগ্রেস সাংসদ। এমনকী প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক নিয়েও কটাক্ষ করেন তিনি। 

বুধবার বিকেলে জাতীয় নাগরিক পুঞ্জি ও নাগরিক সংশোধনী আইনের বিরোধিতায় কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বসিরহাটের বাদুড়িয়া চৌমাথা করাতকল মাঠে জনসভার আয়োজন করা হয়েছিল। কংগ্রেস বিধায়ক আবদুর রহিম দিলু সভাটির আয়োজন করেছিলেন। সেই সভার প্রধান বক্তা ছিলেন অধীর। সভায় এনআরসি ও ক্যা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমিও বাংলাদেশ থেকে এদেশে এসেছি। তারপর সাংসদ হয়েছি।” এরপরই মোদি-শাহকে

জুটিকে তিনি প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন,“আমার নাগরিকত্ব কি তোর বাবা দিয়েছিল?” এখানেই শেষ নয়। এরপর বেনজির ভাষায় লোকসভার বিরোধী দলনেতার সাফ কথা, “ভারত নরেন্দ্র মোদি অমিত শাহের বাপের জমিদারি নয়। তোরা আজ আছিস, কাল থাকবি না। মহারাষ্ট্র-ঝাড়খন্ড দেখিয়ে দিয়েছে তোমাদেরও লাথি মারা যায়। আগামী দিল্লির নির্বাচনে তোমরা লাথি খাবে প্রস্তুত হও। সংবিধানবিরোধী আইন মানুষ মানবে না।”

দিন কয়েক আগে সন্ত্রাসবাদিদের সঙ্গে যোগাযোগের অভিযোগে কাশ্মীরের ডিএসপি দেবেন্দর সিং গ্রেপ্তার হন। সেই প্রসঙ্গে অধীরের মন্তব্য ঘিরে বিতর্ক মাথাচারা দিয়েছিল। সেই প্রসঙ্গে অধীররঞ্জন বলেন, “বিজেপি আরএসএস ও কিছু সংবাদমাধ‍্যম আমাকে পাকিস্তানি বলে আখ্যা দিয়েছে। আমি প্রকাশ্য জনসভায় বলছি আমি অধীর রঞ্জন চৌধুরি আমি পাকিস্তানি।”

এদিন সভামঞ্চ থেকে মোদি-মমতা বৈঠক নিয়ে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “রাজ্যের জন্য টাকা চাইতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে যাওয়া দরকার নেই, দিল্লির অর্থ ভবনে যাওয়া দরকার।” বাদুড়িয়ার সভা শেষ করে বসিরহাট টাউন হলে আরেকটি সভা করে যান অধীর চৌধুরি।