ক্যা নিয়ে বিজেপির অভিনন্দন যাত্রায় মানুষের ঢল কোচবিহারে

1197

কোচবিহার, ৩০ ডিসেম্বরঃ ঢাক, ঢোল, মাদলে আদিবাসী নৃত্যের মাধ্যমে এক অন্য আঙ্গিকে অভিনন্দন যাত্রা বিজেপির। সোমবার জোড়া মিছিলে ‘রাজনগর’ হাঁসফাঁস হলেও কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এইদিন ক্যা-র সমর্থনে দেশের প্রধান মন্ত্রী ও সরাষ্ট্র মন্ত্রীকে অভিনন্দন জানাতে বিজেপির পক্ষ থেকে নাগরিক মিছিলের আয়োজন করা হয়। অন্যদিকে কোচবিহার জেলা বইমেলা উপলক্ষে ‘ বইয়ের জন্য হাঁটুন’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে সরকারী ভাবে পদযাত্রা সংগঠিত হয় কোচবিহার শহরে। একটি রাজনৈতিক অন্যটি প্রশাসনিক এই দুই কর্মসূচীকে ঘিরে অশান্তির আশংকা থাকলেও শেষ পর্যন্ত সুষ্ট ভাবে সম্পন্ন হয় দুটি পৃথক কর্মসূচী। এদিনের বিজেপির মিছিলে কর্মীদের অংশ ছিল চোখে পড়ার মতো।

দলের কেন্দ্রীয় নেতা মুকুল রায় সহ এই মিছিলে নেতৃত্ব দেন কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক, আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ জন বার্লা, জেলা বিজেপি সভানেত্রী মালতী রাভা প্রমুখ। এই কর্মসূচী উপলক্ষে শহরের পঞ্চরঙ্গি মোড়ে অস্থায়ী মঞ্চে মিছিলে অংশ গ্রহণকারী বিজেপি কর্মীদের অভিনন্দন জানায় মুকুল রায়। এদিন তিনি এই অভিনন্দন যাত্রায় মানুষের ঢল দেখে আবেগে আপ্লূত হন মুকুল রায়। এদিন অংশ গ্রহণকারী দলীয় কর্মীদের মধ্যেও ছিল স্বতঃফুর্ত উচ্ছ্বাস। ঢাক, ঢোল, মাদল নৃত্যের মাধ্যমেও এই যাত্রায় অংশ নেন শিল্পীরাও।

মুকুল রায় বলেন, নাগরিকত্ব হননের জন্য নয়, নাগরিকত্ব দেবার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার এই আইন বলবত করতে চায়। অথচ এরাজ্যে  ক্যা নিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। তাঁরা মানুষকে ভুল বুঝিয়ে অস্থিরতার সৃষ্টি করতে চাইছে।

অন্যদিকে এই কর্মসূচীতে অংশ নিতে আসা বিজেপি কর্মীদের গাড়িতে হামলার অভিযোগ উঠেছে মাথাভাঙা শহরে। অভিযোগ কোচবিহার শহরে বিজেপির কর্মসূচীতে যোগ দিতে আসার জন্য একটি বাস ও দুটি অটো রিক্সা করে রওনা দিয়েছিল। সেই সময় ওই গাড়ি গুলির উপরে হামলা চালায় তৃণমূল কর্মীরা বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এর প্রতিবাদে মাথাভাঙা শহরের কলেজ মোড়ে পথ অবরোধ করে বিজেপি কর্মীরা।