হরিয়ানাতে প্রবল ধাক্কা বিজেপির, সমস্ত অনুষ্ঠান বাতিল করলেন অমিত শাহ

1694

ওয়েব ডেস্ক, ২৪ অক্টোবরঃ হরিয়ানাতে প্রবল ধাক্কা বিজেপির। প্রশ্নের মুখে পড়েছে দলের রণকৌশল। বিজেপি আশা করেছিল মহারাষ্ট্রের মতো হরিয়ানাতেও ভোটে সুইপ করবে। সকালের পর থেকেই স্পষ্ট হয়ে যায়, তা সম্ভব হচ্ছে না। কংগ্রেসের সঙ্গে লড়াই হচ্ছে হাড্ডাহাড্ডি। সম্ভবত জেজেপির মতো আঞ্চলিক দলের সমর্থনই সরকার গড়ার জন্য নির্ণায়ক হয়ে উঠতে চলেছে।এই অবস্থায় জরুরি বৈঠকে হারিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহার লাল খাট্টারকে তলব করেছে বিজেপি নেতৃত্ব। অমিত শাহ,জে পি নাড্ডার উপস্থিতিতে এই জরুরি বৈঠকের ডাক দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে পূর্বপরিকল্পিত সমস্ত বৈঠক বাতিল করে দিয়েছেন অমিত শাহ। সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের দাবি, ইন্দো টিবেটিয়ান বর্ডার পুলিশের একটি অনুষ্ঠানে যাওয়ার কথা ছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের। তবে সেই অনুষ্ঠান বাতিল করেছেন শাহ। মূলত ভোটের এই ফলাফল দেখার পরেই সমস্ত অনুষ্ঠান বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন নাকি বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।

অন্যদিকে বিজেপির সহ-সভাপতি বিনয় সহস্রবুদ্ধের কথায়, “কেন এমনটা হল, তার হদিশ পেতে আমরা আত্মবিশ্লেষণ করব।’ এদিকে বেলা সাড়ে বারোটা পর্যন্ত রাজ্যের ৯০টি আসনের মধ্যে ৩৭টিতে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি, আর ৩২টিতে কংগ্রেস। তবে সবাইকে চমকে দিয়ে কিং মেকারের ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে চলেছে জননায়ক জনতা পার্টি। তারা এগিয়ে ১২টি আসনে। হরিয়ানায় বিজেপির লক্ষ্য ছিল ৭৫ আসনে জয়।

শেষ পর্যন্ত সংখ্যায় কিছু অদলবদল ঘটলেও লক্ষ্যের যে ধারেকাছে পৌঁছনো যাচ্ছে না, তা এখনই স্পষ্ট। এরপরই রাজ্যের নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা তথা হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টরকে দিল্লিতে ডেকে পাঠিয়েছে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব।

প্রকাশিত হচ্ছে দুই রাজ্যের বিধানসভা ভোটের ফলাফল। রাজনেতিকভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হরিয়ানা। যদিও বেশিরভাগে বুথ ফেরত সমীক্ষাতেই বলা হয়েছে যে বিজেপি অনায়াসে জিতে যাবে এই রাজ্যে। তবে কোনও কোনও এক্সিট পোল বলছে, হরিয়ানায় কোনও দলই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না। ফলে জেজেপি-র হাতে থাকতে পারে তাস। হরিয়ানা মনোহর লাল খট্টর ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে পারবেন কিনা, সেটা সময়ই বলতে পারবে। তবে, গণনার শুরু থেকেই কংগ্রেসকে পিছনে ফেলে দেয় বিজেপি। যদিও কিছুক্ষণের মধ্যেই কাছাকাছি এসে যায় কংগ্রেস।