খেয়াঘাটের দখলকে কেন্দ্র করে বোমাবাজি,মৃত ৩

230

মুর্শিদাবাদ, ২৯ অক্টোবর: খেয়াঘাটের দখল কার হাতে থাকবে তা নিয়ে বোমাবাজি এলাকাই। ওই ঘটনা জেরে বোমা ফেটে তিনজনের মৃত্যু হয় বলে জানা গছে। ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদের জলঙ্গি টলটলি খেয়াঘাট এলাকায়। ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে এলাকায়। সোমবার রাতে ওই ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহগুলি উদ্ধার করে নিয়ে আসে। ওই ঘটনার জেরে ব্যাপক উত্তেজনা থাকায় ঘটনা স্থলে মোতায়েন করা হয়ছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। ওই ঘটনাই স্থানীয়রা এখনও আতঙ্কিত রয়েছে। ঘটনা তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মৃত ওই তিন জনের নাম নান্টু মোল্লা, মিন্টু মণ্ডল ও ছবি শেখ। তাঁদের বাড়ি জলঙ্গির বিভিন্ন এলাকায়। জানা গেছে, বেশ কয়েকদিন ধরেই টলটলি খেয়াঘাটের দখলদারি নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছিল এলাকারই বেশ কয়েকজনের মধ্যে। এই মাসের ১২ তারিখে দু’পক্ষের মধ্যে এনিয়ে বোমাবাজিও হয়। সেই ঘটনায় গতকালের মৃত তিনজন জড়িত ছিল বলে অভিযোগ পুলিশের। সোমবারও তেমনই সংঘর্ষের পরিস্থিতি দেখা দেয়।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, নান্টু মোল্লা, মিন্টু মণ্ডল ও ছবি শেখ নামে তিনজন ফরাজিপাড়ার কাছে একটি পরিত্যক্ত ঘরে জড়ো হন। সেখানে বোমা নিয়ে নাড়াচাড়া করতে গিয়েই আচমকা বিস্ফোরণ ঘটে। ঘটনাস্থলেই ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় তিনজনের দেহ। ওই ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থালে পৌঁছয় জলঙ্গি থানার পুলিশ। মৃত দেহে গুলি পুলিশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। ঘটনা তদন্তে শুরু করেছেন পুলিশ।

জলঙ্গির তৃণমূল বিধায়ক আব্দুর রাজ্জাক জানান, খেয়াঘাটের দখলদারি নিয়ে বচসার জেরেই এই ঘটনা ঘটেছে। অন্যদিকে স্থানীয়দের অভিযোগ, আগের গণ্ডগোলের সময়ে পুলিশ এদের বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ না নেওয়াতেই এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ।

তবে এদিনের ঘটনায় মৃত নান্টু মোল্লার স্ত্রীর দাবি, অক্টোবরের গোড়ার দিকে গণ্ডগোলের পর থেকে তাঁর স্বামী বাড়িতে থাকতে পারেননি। ফরাজিপাড়ার ওই পরিত্যক্ত ঘরেই আশ্রয় নিয়েছিল। সোমবার সন্ধেবেলা সেখানে বন্ধুদের সঙ্গে ভাত খেতে বসেছিল নান্টু। বিরোধী গোষ্ঠী সে কথা জানতে পেরে, ওই সময়েই বোমা ছুঁড়ে তাদের খুন করেছে বলে অভিযোগ।