করোনা ভাইরাস নিয়ে সচেতনা শিবির বিএসএফের

37

বালুরঘাট, ৮ ফেব্রুয়ারীঃ করোনা ভাইরাস নিয়ে যখন রীতিমত উদবিগ্ন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। তখন দক্ষিন দিনাজপুরের ভারত-বাংলাদেশের হিলি আন্তর্জাতিক সীমান্তে কর্মরত বিএসএফ জওয়ান্দের ভরসা স্রেফ মাস্ক আর গ্লাভস। যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বার বার মাস্ক ও গ্লাভস পড়ে থাকার পাশাপাশি হ্যান্ড ওয়াস দিয়ে হাত ধোয়ার পরামর্শ দিলেও আজ হিলি আন্তর্জাতিক সীমান্তে না জওয়ান বা শুল্ক দফতর বা অভিবাসন দফতরের কর্মীদের মধ্যে হাত ওয়াস করার দৃশ্য চোখে পড়ল না।

অথচ প্রচুর বাংলাদেশি নাগরিক বাংলাদেশ থেকে যেমন আসছে। তেমনি এপার থেকেও বেশ কিছু পর্যটককে কেউ মাস্ক পড়ে বা মাস্ক ছাড়াই এই সীমান্ত দিয়ে বৈধ্য কাগজপত্র নিয়ে যাতায়াত করতে দেখা গেল। তারা শুল্ক দফতর ও অভিবাসন দফতরে যথারীতি তাদের লাইন পড়তেও দেখা গেল। কিন্তু অভিবাসন দফতরে যদিও বা মাস্ক পড়ে দু একজন কর্মীকে কাজ করতে দেখা গেল ও শুল্ক দফতরে তারও বালাই নেই। হাত ধোয়ার ব্যাপারটি তো থাকবে না। তা বোঝাই যায়।

যদিও জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক সুকুমার দে ফোনে জানিয়েছেন,ওখানে স্ক্রিনিং এর ব্যাপারে সু-স্বাস্থ্যের ব্যাপারে যাবতীয় পরামর্শ বিএস এফ ও অভিবাসন দফতরের কর্মীদের মেনে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, তবে চিন থেকে কেউ যদি ভারত হয়ে এই সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশ ফিরে যেতে চায়। সে ব্যাপারে তাকে আটকে রেখে অভিবাসন দফতর থেকে আমাদেরকে খবর দিতে বলা হয়েছে।  যাতে তাকে পরীক্ষা করে দেখা সম্ভব হয়। তবে বাংলাদেশে যেহেতু এরোগ এখনও ধরা পড়েনি তাই অযথা আতংকিত হবার কিছু নেই বলে জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক  ফোনে জানিয়েছেন।

যদিও সীমান্তে ওপার থেকে আসা বাংলাদেশী নাগরিক সুত্রে জানা গেছে ওপারে চিন থেকে প্রায় ১৭০জন শিক্ষার্থীকে সেদেশের সরকার তাদের দেশে ফিরিয়ে নিয়ে এসেছে। তাদের ঢাকায় অবজারভেশনে আপাতত রাখা হয়েছে।

যদিও ঢাকা থেকে আজ ভারতে আসা বাংলাদেশী নাগরিক মোকারুল হোসেন জানান, সেদেশের প্রচুর শ্রমিক ঠিকা ভিত্তিতে চিনে কাজ করে ফিরে এসেছে পাশাপাশি প্রচুর শিক্ষার্থী ও ফিরে এসেছে। সেজন্য ঢাকায় এখন বেশীর ভাগ মানুষ সতর্কতা হিসেবে মাস্ক ব্যবহার করছে। তবে সীমান্তের দুই দিকেই এই সতর্কতা তেমন জোরালো ভাবে পালন করা হচ্ছেনা। আরও একটু কড়া সতর্কতা অবলম্বন করা দুদেশের সীমান্তে অবলম্বন করা উচিত বলে জানান। হিলি সীমান্তে এপারেও যেমন ঢিলে ঢালা মাস্ক আর গ্লাভস পরে বিএসেফকে কাজ করতে দেখা গেল। তেমনি বাংলাদেশের বিবিজিকেও ওই গ্লাভস আর মাস্ক পড়ে কাজ সারতে দেখা গেছে আজ।