মেখলিগঞ্জে চতুর্থ শ্রেণীর দুই ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ বিএসএফের বিরুদ্ধে

604

মেখলিগঞ্জ, ২৩ জানুয়ারিঃ নেতাজী জন্মজয়ন্তীর পালন করতে এসে চতুর্থ শ্রেণীর দুই ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠল বিএসএফের বিরুদ্ধে। ঘটনায় চরম উত্তেজনা কোচবিহার জেলা ভারত বাংলাদেশ সীমান্তের মেখলিগঞ্জে।  ওই ঘটনায় অভিযুক্ত বি এস এফ কর্মীকে স্কুলে আটক করে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের। ওই ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে মেখলিগঞ্জ থানার পুলিশ। পরে বিএস এফের সহযোগিতায় পুলিশ ওই অভিযুক্তকে উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়,বৃহস্পতিবার স্থানীয় খড়খড়িয়া এপি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নেতাজী জন্মজয়ন্তী পালনের জন্য সময়ের আগে বিদ্যালয়ে আসে স্থানীয় দুই ছাত্রী। অভিযোগ সেই সময় সীমান্তে পাহারারত এক বিএসএফ কর্মী  কমলালেবু ও চকলেট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে তাদেরকে স্কুলের পাশে একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে অশালীন আচরন করে বলে অভিযোগ। সেখান থেকে ওই দুই ছাত্রীর মধ্যে একজন পালিয়ে গিয়ে স্কুলের পাশের বাড়িতে গিয়ে এক মহিলাকে সব কথা খুলে বলেন। পরে স্থানীয় লোকজন সেখানে গিয়ে ওই কর্মরত বিএসএফকে আটক করে মারধোর করে স্কুলের ঢুকিয়ে রাখে। পরে পুলিশ এসে অভিযুক্ত ওই বিএসএফকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।  

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মানস চক্রবর্তী জানিয়েছেন, চতুর্থ শ্রেণীর দুই ছাত্রীর উপর সীমান্তে টহলরত এক বিএসএফ জওয়ান অশালীন আচরন করে বলে স্থানীয়দের কাছে জানতে পেরেছি। তাতে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। আমরা বিএসএফ কম্যান্ডার ও মেখলিগঞ্জ থানায় জানান হয়েছে। আমরা তার কঠরতম শাস্তি চাই। সীমান্তরক্ষী বাহিনীর এই ধরনের আচরনে ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে অভিভাবকরা তার সন্তানের আর বিদ্যালয়ে পাঠাতে চাইবে না।

প্রসঙ্গত, এদিন গোটা রাজ্যের সাথে মেখলিগঞ্জের খড়খড়িয়া এপি প্রাথমিক বিদ্যালয়েও নেতাজী জন্মজয়ন্তী ছিল। সেই অনুসারে ছাত্রছাত্রীরা ৯টার সময় বিদ্যালয়ে আসার কথা ছিল। কিন্তু সেই সময়ের আগে ওই দুই ছাত্রী বিদ্যালয়ে আসে। তখন ওই বিদ্যালয়ে কোন শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রী ছিল না বলে জানা গেছে।  ওই দুই ছাত্রীকে একা পেয়ে তাদের সাথে বিএসএফ কর্মী অশালীন আচরন করে বলে অভিযোগ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।