১ ফেব্রুয়ারি থেকে শিলিগুড়ি থেকে কাঠমাণ্ডু পর্যন্ত চালু হচ্ছে বাস পরিষেবা,খুশি পর্যটকরা

347

ওয়েব ডেস্ক, ২৫ জানুয়ারিঃ পূরণ হতে চলেছে দীর্ঘদিনের দাবি। সৌজন্যে অবশ্যই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচেষ্টা। কারণ তাঁর উদ্যোগেই এবার চালু হতে চলেছে বাংলার সঙ্গে সরাসরি সরকারি বাস পরিষেবা। রাজ্য পরিবহণ দফতরের মুকুটে নয়া পালক। এবার শিলিগুড়ি থেকে কাঠমাণ্ডু পর্যন্ত চালু হচ্ছে বাস পরিষেবা। ফেব্রুয়ারি মাসের ১ তারিখ থেকেই শিলিগুড়ি থেকে সরকারি বাস যাবে কাঠমাণ্ডু। শিলিগুড়ি থেকে নেপালের রাজধানী কাঠমাণ্ডুর দূরত্ব ৪৮৫ কিমি। দীর্ঘ এই পথ যেতে সময় লাগবে প্রায় ১১ ঘণ্টা। আপাতত এই বাস পরিষেবা চালু হওয়ার খবর খুশির রেশ ছড়িয়েছে নেপালি জনজাতি মানুষদের পাশাপাশি পর্যটকদের মধ্যেও।

জানা গিয়েছে, আপাতত ভলভো ও নন-ভলভো সরকারি বাস পরিষেবা চালু করা হবে। প্রতিদিন একটি করে বাস শিলিগুড়ি থেকে কাঠমাণ্ডু যাবে। অন্যদিকে কাঠমাণ্ডু থেকেও প্রতিদিন একটি করে বাস শিলিগুড়ি আসবে। সড়ক পথে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে করতে কাঠমাণ্ডু যাওয়ার জন্য পর্যটকদের জন্য বাসের দাবি যেমন আগে থেকে ছিল তেমনি সাধারন মানুষদের মধ্যেও এই দাবি ছিল কম ব্যয়ে কাঠমাণ্ডু যাওয়ার জন্য। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলায় কয়েক হাজার নেপালি জনজাতির মানুষ থাকেন যারা জন্মসুত্রে ভারতীয় হলেও শিকড় রয়ে গিয়েছে নেপালে। তাই তাঁরা এই বাস পরিষেবা চাইছিলেন দীর্ঘদিন ধরেই। সেই দাবিকে মান্যতা দেওয়ার কথা ভাবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজ্য পরিবহণ দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শিলিগুড়ি ও কাঠমাণ্ডুর মধ্যে এই পরিষেবা চালু হচ্ছে। পরের দিন থেকে তা চালু হবে কাঠমাণ্ডু ও শিলিগুড়ির মধ্যে। বাস পরিষেবা দেবে উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগম। ৪৮৫ কিমি দূরের এই পথ পাড়ি জমাতে সময় লাগবে ১১ ঘন্টা। ভাড়া পড়বে মাথাপিছু ১৩৫০ টাকা করে। প্রতিদিন আপাতত ২টি করে এসি ভলবো বাস চলবে এই রুটে। একটি কাঠমাণ্ডু থেকে যাত্রা শুরু করবে অন্যটি শিলিগুড়ি থেকে। যাত্রী সংখ্যা বাড়লে বা টিকিটের চাহিদা বাড়লে বাড়ানো হবে বাসের সংখ্যাও। সে রকম সাফল্য পাওয়া গেলে বাস চালানো হবে কলকাতা থেকেও।