লকডাউনের কারনে ক্ষতির মুখে পড়েছে ব্যাবসায়ীরা,দোকান খোলার আর্জি জানিয়ে জেলা শাসক স্মারকলিপি দিলেন কোচবিহার জেলা ব্যাবসায়ী সমিতি

143

কোচবিহার, ৭ আগস্টঃ রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই ঘোষণা করেছিলেন সপ্তাহে দুদিন লকডাউন হবে রাজ্যে। আর সেই লকডাউনের পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসনের ডাকা লকডাউনে অস্বস্তিতে সাধারন ব্যবসায়ীরা। তারা ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন বলেই জেলা শাসকের দপ্তরে স্মারকলিপি দিলেন ব্যাবসায়ী সমিতি। এদিন ওই ব্যাবসায়ী সমিতির প্রতিনিধিরা জেলা শাসকের করনে গিয়ে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

এদিন ওই ব্যাবসায়ীর সমিতির এক সদস্যের দাবি, সারা রাজ্যে তথা কোচবিহার জেলাতেও ১৭১ দিনে ধরে লকডাউন চলছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসন অল্প সময়ের জন্য খোলা রেখেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে সাধারন মানুষ বা ক্রেতারা বাজারে ব্যাপক ভিড় করছে। তাতে সংক্রমণের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাজ্যে সরকার যেমনটা বলেছে যে, যে সমস্ত এলাকায় কন্টেইনমেন্ট জোনের আওতায় পরে সেই সব এলাকা বাদ দিয়ে দোকান- বাজার খোলা রাখা হোক। এবং রাজ্য সরকারের যে লকডাউন রয়েছে সেটা আমরা মানব।

জেলা প্রশাসনের ডাকা লকডাউন আমরা মানব না। কারন আমাদের ব্যবসায়ীদের বাঙ্কের ঋণ রয়েছে তা দিতে হয়। কিন্তু লকডাউনের কারনে ব্যবসা বন্ধ তাদের পক্ষে ঋণশোধ করা কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তাই আমরা চাই কন্টেইনমেন্ট জোন এলাকায় গুলিতে সব দোকান বন্ধ থাক জেলার বাকি জায়গা গুলিতে দোকান খোলা হোক। এই দাবি নিয়ে আমরা বিভিন্ন ব্যাবসায়ীরা জেলা শাসকের সাথে দেখা করে কথা বলে স্মারকলিপি দিলাম।