লকডাউনের আটকে পড়ে অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছে সার্কাস দলের কর্মীরা, প্রশাসনের কাছে সাহায্যের আর্জি

168

বালুরঘাট, ২৬ এপ্রিলঃ প্রাচীন বিখ্যাত কালি মেলায় সার্কাস দেখাতে এসে লকডাউনের আটকে পড়ে অসহায় ভাবে দিন কাটাচ্ছে সার্কাসের খেলোয়াড় থেকে শুরু করে ম্যানেজাররা পর্যন্ত। লকডাউন হওয়ার প্রায় এক মাসের উপর চলছে। তখন থেকে প্রায় অর্ধাহারে দিন জাপন করছে ওই সার্কাস দলটি। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিন দিনাজপুর জেলার বালুরঘাটের ঘুঘুডাঙ্গাতে চাটাকালি পুজোর মেলায়।

জানা গেছে, গত মার্চ মাসের ৫ তারিখ থেকে ঘুঘুডাঙ্গার চাটাকালি মাতার পুজো শুরু হয়।প্রত্যেকবার এই পুজোকে ঘিরে ঘুঘুডাংগায় বিরাট মেলা বসে থাকে।এবার সেই মেলায় যোগ দিতে আসে জলপাইগুড়ি জেলার ফালাকাটা থেকে সার্কাস পার্টি নিয়ে বালুরঘাটের ঘুঘুডাঙ্গায়।

এই পর্যন্ত সব ঠিক ছিল। একদিকে মেলা ক্রমেই জমে উঠছিল অন্যদিকে সার্কাসের খেলা দেখিয়ে নিজেদের সারা বছরের জন্য না হলেও বেশ কয়েকমাসের জন্য পরিবার পরিজন নিয়ে দিন গুজরানের জন্য নিজেদের আর্থিক ভান্ডার সঞ্চয় করে রাখছিল।

কিন্তু মানুষ ভাবে এক আর হয় আরেক। মেলা চলতে চলতেই চলে আসে করোনা সক্রমন রুখতে লকডাউন। কেন্দ্রীয় সরকারের জারি করা লকডাউনের জেরে ১৩জন সার্কাস কর্মী না পারছে জলপাইগুড়ির নিজের বাড়িতে ফিরতে আবার না পারছে নিজেদের আহারের সংস্থান করতে। মেলাতে খেলা দেখিয়ে যে কিছু অর্থ সঞ্চয় করে ছিল। তা দিয়ে কোন রকমে কয়েকদিন দিন গুজরান হলেও  এরপর থেকে এই ১৩জন সার্কাস কর্মীর অসহায় ভাবে দিন কাটছে। কখন ও এলাকার বাসিন্দাদের সাহায্যের উপর কিংবা শাসক দলের বিলি করা ত্রানের উপর। কিন্তু মোটের উপর বেশির ভাগ দিন তারা অর্দ্ধাহারে দিন কাটাতে বাধ্য হচ্ছে বলে তারা জানিয়েছে।

তাদের দাবি, জেলা প্রশাসন তাদের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিক। পাশাপাশি তাদের বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করে দিক।