প্রতিবেশীদের মধ্যে সংঘর্ষ, মায়ের সম্মান বাঁচাতে গিয়ে মৃত্যু হল এক ছাত্রের

105

বালুরঘাট ৭ আগস্টঃ প্রতিবেশীদের মধ্যে সংঘর্ষের সময় মায়ের সম্মান  বাঁচাতে  গিয়ে মৃত্যু হল এক ছাত্রের। ঘটনাটি ঘটেছে বালুরঘাট শহরের আখিরা পাড়ায়। মৃতের নাম রত্ন বর্মন (১৭)। সে নদীপার এন সি হাইস্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল। বালুরঘাট থানা থেকে সামান্য দূরে এই ঘটনায় এলাকায় যথেষ্ট চঞ্চল্য ছড়িয়েছে। পাশাপাশি শোকের ছায়া নেমে এসেছে এলাকায়। এলাকার লোকজন ভাবতেও পারছেনা প্রতিবেশীদের গন্ডোগোলে মধ্যে পড়ে এভাবে অকালে প্রান দিতে  হল ওই স্কুল ছাত্রটিকে। পুলিশ এখনও পর্যন্ত তিনজনকে আটক করে থানায় নিয়ে গেলেও বাকিরা পালিয়ে যাওয়ায় এখনও ধরতে পারেনি। তাদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

যদিও স্থানীয় ও মৃতের পরিবারের কেউ কেউ অভিযোগ জানিয়েছেন ওই এলাকার এক্স মেম্বারের সামনেই এই ঘটনা ঘটলেও তিনি এই প্রতিবেশীদের ঝামেলা থামাতে যাননি। তবে এক্স মেম্বার পিংকি সরকার সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

স্থানীয় সুত্রে ও মৃত ছাত্রের পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকালে আখিরা পাড়ায় দুই পরিবারের মহিলাদের মধ্যে প্রথমে বচসা শুরু হয়। এর আগেও নাকি নানান ব্যাপারে এই দুই প্রতিবেশী মহিলার মধ্যে ঝামেলা হয় আবার স্থানীয়দের হস্তক্ষেপে তা মিটেও যায়। সেরকম দুই মহিলার মধ্যে চলা সকালের ঝামেলা মিটে গেলেও ফের তারা সন্ধ্যায় আবারও একই ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েন।

জানা গেছে, সন্ধ্যায় রত্নের মা রুমাদেবী পাড়ার দোকানে জিনিসপত্র কিনতে গেলে দুই পরিবারের মধ্যে ফের সংঘর্ষ বেধে যায়। ঝামেলার খবর পেয়ে রত্ন ছুটে গিয়ে মায়ের সম্মান  বাচাতে যায়।এর মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালীন রত্নের মাথায় কাঠ দিয়ে আঘাত করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলে লুটিয়ে পড়ে রত্ন। বৃহস্পতিবার রাতে প্রথমে তাকে বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

 সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে কলকাতা রেফার করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। কলকাতা নিয়ে যাওয়ার পথেই আজ ভোর রাতে রত্নর মৃত্যু হয় বলে পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বালুরঘাট থানার পুলিশ। ইতিমধ্যেই তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।