বাংলায় এনআরসি আতঙ্কে মৃত পরিবার গুলিকে ২ লক্ষ টাকা করে দেওয়ার ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

12

ওয়েব ডেস্ক, ২০ সেপ্টেম্বরঃ বিজেপি চাইলেও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর স্পষ্ট বার্তা, ‘বাংলায় এনআরসি করতে দেব না।’ পাশাপাশি এনআরসি আতঙ্কে শুক্রবার পর্যন্ত রাজ্যে যে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে তাঁদের পরিবারকে দু’লক্ষ টাকা করে আর্থিক সাহায্য করবে সরকার।

শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাধারণ নাগরিকদের উদ্দেশে জানান, ‘অযথা আতঙ্কিত হবেন না। রেশন কার্ডের ভুল সংশোধন করে ডিজিটাল র‍েশন কার্ড করা হচ্ছে। এর সঙ্গে এনআরসি’র কোনও সম্পর্ক নেই।’

প্রসঙ্গত, গত বুধবার মৃত্যু হয় মুর্শিদাবাদের ডোমকলের শিবনগর গ্রামের বাসিন্দা মিলন মণ্ডলের। কাজের সূত্রে ঘর-বাড়ি ছেড়ে কেরলে ছিলেন তিনি। বাড়ি ফেরার পরেই কানে গিয়েছে এনআরসি নিয়ে গুজব। এরপর চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন মিলন।

পরিবারের সঙ্গে এনিয়ে আলোচনায়ও করেন তিনি। গত সোমবার সমস্তরকম নথিপত্র নিয়ে স্থানীয় একটি দোকানে যাচাই করাতে গিয়েছিলেন। সেদিন রাতেই সবাই ঘুমিয়ে পড়লে বাড়িতে আত্মঘাতী হন মিলন। তাজা প্রাণটা অকালে চলে যাওয়ায় ভেঙে পড়েছে মৃতের পরিবার। এই ঘটনায় এলাকায় যথেষ্ট উত্তেজনা রয়েছে।

এদিকে, পৈতৃক জমির কাগজ তাঁর হাতে না থাকায় এনআরসি হলে তাঁর ভিটেমাটি চলে যাবে। সেই আতঙ্কই গ্রাস করেছিল জলপাইগুড়ির ময়নাগুড়ির বড়কামাত এলাকার বাসিন্দা অন্নদা রায়কে (৪২)। বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির কাছে রেলওয়ে ক্রসিং-এর গেটে গলায় গামছার ফাঁস দিয়ে ঝুলতে দেখা যায় তাঁকে। ইদানিং রাজ্য সরকারের তরফে ব্লকে ব্লকে রেশন কার্ড ডিজিটাল করা হচ্ছে।