ভারত ছাড়ো আন্দোলনের সূচনার শুভক্ষণের স্মৃতিচারণা এবং শহীদদের শ্রদ্ধা

41

নিজস্ব সংবাদদাতা, নদিয়াঃ ১৯৪২ সালের আজকের দিন অর্থাৎ ৯ আগস্ট থেকে ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলন মহাত্মা গান্ধীর দ্বারা পরিচালিত হয়। ১৮ আগস্ট গোয়ালিয়ার ট্যাঙ্ক ময়দানে তিনি এই উদ্দেশ্যে একটি ভাষণে বলেন “করেঙ্গে ইয়া মরেঙ্গে”। সুচেতা কৃপালিনী, ঊষা মেহতা, কনক লতা বড়ুয়া, ভোগেশ্বরী দেবী, অরুনা আসফ আলি, রানী চন্দ্র, এলা দত্ত ,সুনিতা সেন, মায়া ঘোষ, ৭৩ বছরের বৃদ্ধা গান্ধী বুড়ি নামে পরিচিত মাতঙ্গিনী হাজরা সেদিনের মহাত্মা গান্ধীর আন্দোলন সামিল হয়েছিলেন।  জীবনের বিনিময় হলেও স্বাধীনতা লাভের সংকল্পে। ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে জানা-অজানা বহু বিপ্লবীর শহীদ হওয়ার পর মিলেছে স্বাধীনতা। তাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য এবং বর্তমান প্রজন্মের মধ্যে তাদের স্মৃতিচারণার উদ্দেশ্যে শান্তিপুর পূর্ণমিলনী প্রতিবছরই বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান রক্তদান, চক্ষু পরীক্ষা, স্বাস্থ্য পরীক্ষা সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান করে থাকে।

এবছর করোনা আবহে স্বাস্থ্যবিধি মেনে রবিবার নদীয়ার শান্তিপুর ডাকঘর বাসস্ট্যান্ডে তাদের দ্বারা প্রতিস্থাপিত শহীদ বেদীতে মাল্যদান, তৎকালীন  বিপ্লবীদের কর্মকাণ্ডের স্মৃতিচারণ করা হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে। শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এক মিনিট নীরবতা পালনের সাথে শিশু সদস্যদের সঙ্গীত এবং কবিতা আবৃত্তি করা হয়।