পঞ্চায়েত সহায়ককে মারধোর করার অভিযোগে গ্রেপ্তার বিজেপি দলের উপপ্রধান

363

মালদা, ৩১ জানুয়ারিঃ পঞ্চায়েত কর্মীকে মারধোর করার অভিযোগের  গ্রেপ্তার বিজেপি দলের উপপ্রধান বিপ্লব মণ্ডল। বৃহস্পতিবার রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অমৃতি গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান বিপ্লব মণ্ডলকে একটি বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে মারধর, খুনের হুমকি, প্রাণনাশের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের হয়েছে ইংরেজবাজার থানায়। সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপি দলের উপ-প্রধানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুরো ঘটনাটি নিয়ে রাজনৈতিক টানাপোড়েন শুরু হয়েছে বিজেপি এবং শাসক দলের মধ্যে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়,গত মঙ্গলবার দুর্নীতির প্রতিবাদ করে আক্রান্ত হয়েছিলেন অমৃতি গ্রাম পঞ্চায়েতের (সহায়ক) এক সরকারি কর্মী সজল মন্ডল। সংশ্লিষ্ট গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান বিপ্লব মন্ডলের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। তার পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে বিজেপি দলের উপ-প্রধানকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আক্রান্ত ওই পঞ্চায়েত কর্মী সজল মন্ডলের অভিযোগ, ১০০ দিনের কাজ নিয়ে অমৃতি গ্রাম পঞ্চায়েতের ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে। উপপ্রধান তাকে চাপ দিয়ে বিভিন্ন চেকে স্বাক্ষর করিয়ে ছাড়পত্র দেওয়ার চাপ দিচ্ছিল। কিন্তু কাজ না করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন তিনি। এছাড়াও বিজেপি দলের ওই উপ-প্রধানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ নিয়েও আর অভিযোগ রয়েছে।

কাজ না করে পঞ্চায়েত থেকে সরকারি টাকা তুলে নেওয়ার চেষ্টার প্রতিবাদ করেছিলেন সজলবাবু। আর তারপরই মঙ্গলবার রাতে তার ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ ওঠে উপ-প্রধানের বিরুদ্ধে। ওই ঘটনার পর আহত অবস্থা ওই পঞ্চায়েত সদস্যকে মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনার পরে ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের হয়। আর ওই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার রাতে উপপ্রধান বিপ্লব মণ্ডলকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

যদিও আদালতে যাওয়ার পথে উপপ্রধান বিপ্লব মণ্ডল পাল্টা অভিযোগ করে বলেন,শাসক দলের আশ্রিত ওই পঞ্চায়েত কর্মী ষড়যন্ত্র করেই আমাকে ফাঁসিয়েছেন। আমার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং মিথ্যা বলে জানান তিনি।