রাজনৈতিক দূরত্ব থাকলেও, আচমকা শিক্ষামন্ত্রীর বাড়িতে হাজির বৈশাখী

230

ওয়েব ডেস্ক, ২৬ অক্টোবরঃ কমছে রাজনৈতিক দূরত্ব। দীপাবলির প্রাক্কালে শনিবার আচমকাই শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে হাজির হলেন বিজেপি নেত্রী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর সম্ভবত এই প্রথম তৃণমূল মহাসচিবের বাড়িতে সাক্ষাৎ করতে গেলেন শিক্ষাবিদ বৈশাখী দেবী। প্রায় দু’ঘণ্টা তিনি ছিলেন পার্থবাবুর বাড়িতে।

তারপর পার্থ বাবুর বাড়ি থেকে বেরনোর সময় সংবাদমাধ্যমকে জানালেন, “পার্থদার সঙ্গে আমার সম্পর্ক দলগত নয়। পার্থদার কাছে আমি নানা বিষয়ে ব্যক্তিগতভাবে কৃতজ্ঞ। বিজয়া গিয়েছে, জন্মদিন গিয়েছে। আমার একবারও এসে ওঁনাকে প্রণাম করা হয়নি। তাই সময় চেয়েছিলাম।”

এদিন আচমকা পার্থবাবুর বাড়িতে বৈশাখীদেবীর আগমন ঘিরে জল্পনা ছড়িয়েছে। তবে কি ফের তৃণমূলে ফিরতে চলেছেন তিনি? বৈশাখীদেবী এদিন বলেন,‘পার্থবাবু এবং আমি দুজনেই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। একই ক্ষেত্রের দুজন মানুষ দেখা করতেই পারেন। আর কলেজের বিষয়টাও এখনও সমাধান হয়নি। সেটা নিয়েও কথা হয়েছে।’ এটাও তিনি পরিষ্কার করেছেন যে, তৃণমূল মহাসচিবের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। সেটা রাজনৈতিক কারণে ভেঙে যাবে এমনটা নয়। তবে শোভনবাবু কোথায়, সেই প্রসঙ্গে প্রশ্ন উঠতেই তাঁর মন্তব্য, ‘ওনার কথা উনি বলবেন। উনি দক্ষ রাজনীতিবিদ। উনি আবার সক্রিয় রাজনীতিতে ফিরুন সেটাই চাই।’

প্রসঙ্গত, মাস খানেক আগেই স-বান্ধবী মেয়র ফের তৃণমূলে ফেরার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন তৃণমুলের মহাসচিবের কাছে। তারপর একবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতেও যান একা বৈশাখী। তারপর থেকে বিজেপির কোনও কর্মসূচিতে আর তাঁদের দুজনকে দেখা যায়নি। এরপর ফের এদিন পার্থ’র বাড়িতে যাওয়া ইঙ্গিতবহ বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের। সেই সময় তাঁর বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িকতার অভিযোগ ওঠায় মিল্লি আল আমিন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের পদ থেকে ইস্তফা দেন বৈশাখীদেবী। কিন্তু বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকে দলে অসম্মানিত বোধ করছেন বলে অভিযোগ তোলেন শোভন-বৈশাখী। দেবশ্রী রায় ইস্যুতেও ক্ষুব্ধ হন তাঁরা। শোনা যায়, বিজেপিতে মোহভঙ্গ হয়েছে তাঁদের। ফের তৃণমূলে ফিরতে পারেন দুজনে। যদিও বিজেপির রাজ্য থেকে শীর্ষ নেতৃত্ব, অনেকেই আসরে নামেন তাঁদের মানভঞ্জনে। তারপর বিষয়টি ধামাচাপা পড়ে যায়।