শিশু মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার মাথাভাঙ্গা হাসপাতাল চত্বর, আক্রান্ত ৩ নিরাপত্তারক্ষী

412

কাজল রায়, মাথাভাঙ্গাঃ শিশু মৃত্যু ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার হয়ে উঠল মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতাল চত্বর। জানা গেছে, শনিবার গভীর রাতে মাথাভাঙ্গা থানার অন্তর্গত ভোগ রামগুড়ি এলাকার বাসিন্দা সুফিয়া খাতুন নামে এক মহিলা প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। এরপর আজ সকাল বেলায় তিনি এক মৃত সন্তানের জন্ম দেন। এই খবর ছড়িয়ে পরতেই রোগীর আত্মীয় পরিজনরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন।তাঁরা ভাঙচুর চালায় মাথাভাঙ্গা হাসপাতালে শুধু তাই নয় হাসপাতালের নিরাপত্তা রক্ষীদের কেউ  মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।

এদিন এই ঘটনায় গুরুতরভাবে আহত হয় নিরাপত্তারক্ষী গণেশ সরকার, জাহাঙ্গীর আলম, প্রভাস শীল। বর্তমানে তাঁরা আহত অবস্থায় ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনায় প্রভাস শীলের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে কোচবিহার পরে তাঁকে কোচবিহার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।এদিকে এই ঘটনার খবর পেয়ে তড়িঘড়ি সেখানে পৌঁছায় মাথাভাঙ্গা থানার পুলিশ। পরে তাঁরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

মহকুমা হাসপাতালে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এখন নিরাপত্তারক্ষীরা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি পালন করবে বলে হুঁশিয়ারি দেন। তাদের দাবি,  যতক্ষণ পর্যন্ত দোষীদের গ্রেফতার করে উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা না করা ততক্ষণ পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। যদিও এই ঘটনায় বনফুল বিবি নামে ব্যক্তিকে আটক করেছে মাথাভাঙা থানার পুলিশ। একের পর এক মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতালে এই ঘটনা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে না চিকিৎসক থেকে হাসপাতালে সমস্ত কর্মচারীরা।

এবিষয়ে হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত সুপার ডক্টর অর্ণব চ্যাটার্জী বলেন, ঘটনা খুবই দুঃখজনক, এই ঘটনায় দোষীদের শাস্তির জন্য থানায় অভিযোগ দায়ের করাভ হয়েছে বলে তিনি জানান। এদিন তিনি দাবি করেন, অবিলম্বে এই মহকুমা হাসপাতালে স্থায়ী পুলিশি নিরাপত্তা বসানো হোক।এদিন এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পরে ওই হাসপাতাল চত্বরে।