কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে মৃত্যু করোনা পজিটিভ রোগীর, চাঞ্চল্য

114

নিজস্ব সংবাদদাতা, দক্ষিণ দিনাজপুরঃ কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে করোনা পজিটিভ রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ালো দক্ষিন দিনাজপুর জেলায়। পাশাপাশি এই ঘটনায় জেলায় করোনা নিয়ে স্বাস্থ্য পরিষেবার অবস্থার দিকে আঙ্গুল তুলেছেন মৃতের পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার সকালে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বংশিহারি ব্লকের বুনিয়াদপুর আইটিআই কলেজে।

স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর মৃত রোগীর নাম অজিত মাহাতো (৪৪)। স্থানীয় ব্রজবল্লভপুর পঞ্চায়েতের ভাইওর গ্রামের বাসিন্দা। যদিও এই ঘটনায় কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের অব্যবস্থার দিকে আঙুল তুলেছেন মৃতের পরিবারের সদস্যরা।

জানা গেছে, স্ত্রী সহ ২ সন্তান নিয়ে সংসার অজিতবাবুর। গত ৩ আগস্ট নিজের সোয়াব টেস্ট করেছিলেন তিনি। ৫ আগস্ট রিপোর্ট এলে তার করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। যার পরেই ৬ তারিখ বুনিয়াদপুরের রশিদপুর আইটিআই কলেজের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে তাকে ভর্তি করা হয়েছিল।

এদিন সকালে ওই সেন্টারে দাদাকে দেখতে এসে এমন দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষ করেন ভাই সুশান্ত মাহাতো। সেন্টারের কাছে জঙ্গলের মধ্যে আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন দাদাকে। যার পরে তড়িঘড়ি তাকে পরিষ্কার জায়গায় এনে স্বাস্থ্য আধিকারিকদের খবর দেন পেশায় সিভিক কর্মী সুশান্ত মাহাতো। চিকিৎসক পৌঁছলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। এই ঘটনায় কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের সকলের মধ্যে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

মৃতের ভাই সুশান্ত মাহাতো জানিয়েছেন, কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ভাইকে দেখতে এসে তার কাছে পরিষেবা নিয়ে অব্যবস্থার কথা শুনেছেন। তবে কি কারনে এমন ঘটনা ঘটলো তা স্পষ্ট নয়। ঘটনা তদন্ত হওয়া জরুরি।

রশিদপুর আইটিআই কলেজের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের নিরাপত্তারক্ষী আজিজার রহমান জানিয়েছেন, তিনি দূর থেকে সকলের উপরই নজরদারি রাখেন। তবে হঠাৎ করে এমন কাণ্ড করে বসবে ওই রোগী তা তিনি ভাবতে পারেনি। মানসিক অবসাদ থেকে এমন ঘটনা হতে পারে বলে মনে করেন তিনি।

ঘটনা নিয়ে ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট মনোতোষ মন্ডল জানিয়েছেন, দুর্ভাগ্য জনক ভাবে এমন মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। তিনি পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানতে পেরেছেন স্ত্রী সহ দুই সন্তান নিয়ে সংসার অজিত মাহাতোর। করোনা পজিটিভ জেনে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন তিনি। তবে তাদের তরফে যথাসাধ্য চেষ্টা করা হচ্ছে। রোগীদের যাতে কোন অসুবিধা না হয় সেদিকে খেয়াল রাখছেন তারা।