ঝাড়গ্রাম শহরে ঢুকে পড়ল হাতি, আতঙ্কে ঘুম ছুটেছে বাসিন্দাদের

17

কার্ত্তিক গুহ, ঝাড়গ্রাম: শনিবার গভীর রাতে ঝাড়গ্রাম শহরে হাজির হয়েছে এক দাঁতাল হাতি। আচমকা শহরে হাতি ঢুকে পড়ায় তীব্র চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, ডিয়ার পার্কের জঙ্গলের দিক থেকে হাতিটি ঘোড়াধরা এলাকায় চলে এসেছে। শনিবার রাতে ঘোরাধারা পার্ক সর্বজনীন পুজো মন্ডপের কাজ চলছিল বৃষ্টির মধ্যে। আচমকা রাস্তায় হাতি দেখে শুরু হয় হইচই। স্থানীয় মানুষ সঙ্গে সঙ্গে বনদপ্তর ও পুলিশকে খবর দেয়। ঝাড়গ্রাম থানার আইসি পুলিশ নিয়ে চলে আসেন। কিন্তু বনদপ্তরের লোকজন না আসায় স্থানীয় বাসিন্দারা আগুন জ্বেলে হাতিটিকে তাড়ানোর চেষ্টা করছেন।

বন দপ্তর জানিয়েছে রাত ১১টায় ঝাড়গ্রাম খানাকুল জঙ্গল থেকে ঘরাধারা স্টেডিয়ামের সামনে চলে আসে। বনকর্মীরা হাতিটিকে ড্রাইভ করে ফের জঙ্গলে ফেরাতে চাইছে কিন্তু উৎসাহিত জনতার ভিড়ে আতঙ্কিত হাতি ঢুকে পড়ে শহরের ভেতরে। এদিকে হাতি ঢুকায় ক্রমশ বাড়তে। তাকে উৎসাহিত জনতার ভিড়। যে রাস্তায় ঢুকে। সেখানেই সামনে পেছনে ভিড় মানুষের। বেচারা জঙ্গলের হাতি শহরের গোলকধাঁধায় ঘুরপাক খেতে থাকে এক ওয়ার্ড থেকে আর এক ওয়ার্ড।

রাত্রি ১২টা নাগাদ চলে আসে সবজি মার্কেট। সেখানে একটু খাওয়ার আশায় দাঁড়ালে প্রমাদ গোনে ব্যবসায়ী ও বনদপ্তর। শুরু হয় তার পেছনে হুটার বাজানো এবং বোম ফাটানো। বিরক্ত হয়ে মানুষ কে তাড়া করে। এরপর স্টেশনে ঢোকার চেষ্টা করে। ঝাড়গ্রাম সুভাষ স্ট্যাচুর কাছে ফলপট্টিতে চলে আছে। এবার গজরাজ কে ফেরাতে আসরে নামানো হয় হাতি তাড়ানোর যান্ত্রিক যান ঐরাবত। শেষে এগলি ওগলি হয়ে শেষ পর্যন্ত  জঙ্গলে ঢুকে যায়।