তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক বিধায়ক মদন মিত্র

608

ওয়েব ডেস্ক, ১৭ অক্টোবরঃ ফের বিস্ফোরক মদন মিত্র। এবার তৃণমূলের দিকেই আঙুল তুললেন তিনি। ফেসবুক লাইভে তিনি অবৈধ প্রোমোটিংয়ের জন্য তৃণমূলের একাংশকে দায়ী করেন। সেইসঙ্গে হুমকি দেন, কমারহাটির বুকে এ কাজ তিনি মেনে নেবেন না। অবৈধ প্রোমোটিংয়ের চেষ্টা করলে যাঁরা এক কাজ করছেন তাঁদের পাঞ্জা কেটে নেওয়ার হুঁশিয়ারিও দেন তিনি।

কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্রের অভিযোগ, তৃণমূলের নাম নিয়ে একদল মেঘনার মাঠে প্রোমোটিংয়ের চেষ্টা করছে। তাঁর কথায়, তৃণমূলের একাংশ দুষ্কৃতী দলের সঙ্গে যোগসাজোশে এ কাজ করার চেষ্টা করছে। কিন্তু সাবধান এর ফল ভালো হবে না। খেলার মাঠে প্রোমোটিং তিনি বরদাস্ত করবেন না। এই মর্মে তিনি দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্বারস্থ হবেন বলেও জানান তিনি।

মদন মিত্র বরাবরই সোশ্যাল মিডিয়া ফ্রেন্ডলি। আর তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিং হতে ভালোও বাসেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি ট্রেন্ডিংও হন। তাঁর ফেসবুক লাইভ মানেই কিছু রসদ লুকিয়ে থাকে। আর তা বেশ জনপ্রিয়ও। সেই ফেসবুক লাইভকে মাধ্যম করেই তিনি এবার হুঁশিয়ারি দিলেন। প্রোমোটিং রাজ চালানো থেকে বিরত হতে বললেন দলের একাংশকে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় মদন মিত্রের গান ও বিভিন্ন ভিডিও বিশেষ জনপ্রিয়। তাঁর শু্যট করা ভিডিও অতি সহজেই নজর কেড়ে নেয়। তেমনই শনিবার সন্ধ্যায় ফেসবুক লাইভে অবতীর্ণ হয়েছিলেন কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র। তিনি বলেন, আমি সাংসদ সৌগত রায়ের সঙ্গে কথা বলে মেঘনার মাঠের উন্নয়নের চেষ্টা করছি, আর সেখানে কি না প্রোমেটিংয়ের নোংরা খেলা চলছে। আবার তাতে জড়িয়ে রয়েছে দলেরই কেউ কেউ।

তবে শুধু দলের একাংশকেই তিনি একহাত নেননি। তিনি এদিন নিশানা করছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকেও। তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্র হুঁশিয়ারি দেন, প্রত্যেকের গতিবিধি আমার নজরে রয়েছে। কে কতটা ভাগ নেবে, কোথায় বৈঠক হচ্ছে, সব জানি। গুন্ডামি করে, টাকা দেখিয়ে মদন মিত্রকে কেনা যাবে না। আমি শুভেন্দু অধিকারী নই। টাকার জন্য আমি বিক্রি হই না।

মদন মিত্র বলেন, ক্লাবের মাঠে খেলাধূলা করুন, ঠিক আছে। যে যতই বড় নেতা ধরুন, মাতব্বর ধরুন। মেঘনাপর মাঠে প্রোমোটিং করতে দেব না। মেঘনার মাঠে হাত দিয়ে হাতের পাঞ্জা কেটে দেব। মদন মিত্রের এই ফেসবুক লাইভের পর রাজনৈতির মহলে রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায়। সমালোচনার ঝড় বইতে থাকে তাঁর পাঞ্জা কেটে নেওয়া মন্তব্যের জেরে।

এরপর ফের ফেসবুক লাইভে এসে তিনি তাঁর পূর্ব মন্তব্যের ব্যাখ্যা দেন। তিনি বলেন, উত্তেজনার বশে পাঞ্জা কেঠে নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে ফেলেছেন তিনি। তবে এটা ঠিক যে কোনওভাবেই মেঘনার মাঠ বেদখল হতে দেবেন না। মদন মিত্র বেঁচে থাকতে তা সম্ভব নয়। আর মদন মিত্র মরলে তৃণমূলের ঝান্ডা বুকে নিয়েই মরবে।