ফেসবুকের বন্ধুযুগলের প্রথম দেখা, পূজা মণ্ডপে সারলেন বিয়ে

858

হুগলী, ১০ অক্টোবরঃ এ যেন প্রেমের টি-টোয়েন্টি। একেবারে ভিন্ন কায়দায় বিয়ে সারলেন এক যুবক যুবতী। আমরা বারবার বিভিন্ন বইয়ের পাতায় শুনেছি লাভ অ্যান্ড ফাস্ট সাইটের সাথে, কিন্তু এ ঘটনা বিরল। এই ঘটনা প্রমান করে দিল ম্যারাজ অ্যান্ড ফাস্ট সাইটও হয়। তাঁদের প্রথম পরিচয় ফেসবুকে।

টানা ৩ মাস ফেসবুকে কথা বলার পর এবারের পূজায় অষ্টমীর গভীর রাতে তাঁদের প্রথম আলাপ। দুজন দুজনকে খুব কাছ থেকে দেখা । আর তক্ষনি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন  তাঁরা বিয়ে করবেন । এরপর প্রতিমা দেখার জন্য ঘোরা বাদ দিয়ে তাঁরা তাঁদের সিদ্ধান্ত ঠিক করেই ফেললেন। শেষে নিজের পাড়ার ক্লাবের মণ্ডপে মা দুর্গাকে সাক্ষি রেখে সুদীপ সিঁদুরে রাঙিয়ে দিলেন প্রীতমাকে। যেন ‘ও ছুরি তোর বিয়ে লেগেছে’! কোনও অপহরণ বা পালিয়ে বিয়ের ঘটনা নয়। এ যেন কত রঙ্গ দেখি দুনিয়ায়।

বিয়ের পর পূজা মণ্ডপে নবদম্পতি

এরপর সুদীপ ওই রাতেই নব বধূকে নিয়ে চলে আসে সোজা বাড়িতে। সেখানে এসেও বিপদ, বাড়ির গেটে ঝুলছে তালা। দীর্ঘক্ষন মাকে ডাকাডাকির পর মা সাড়া দিচ্ছে না দেখে সে নিজের বাড়ির গেট টপকে ভিতরে ঢোকে মাকে ডেকে তোলে। চোখের সামনে নব বধূকে দেখে হতবাক হয়ে পরে মা। নবমীর ভোর রাতে কোনও রকম আয়োজন ছাড়াই নববধূকে বরণ করেন তিনি।

বিয়ের পর নব বধূকে নিয়ে নিজের বাড়িতে

তবে পাত্রীপক্ষের পরিবারে চলছে এখনও মান অভিমানের পালা। তবে প্রীতমা নিজের পরিবারকে মেনেজ করে নিতে পারবে বলে আশাবাদী। কারন “সংসার তো সুখের হয় রমণীর গুনে”।