ছিনতাইয়ে ব্যর্থ,ব্যাঙ্ক কর্মীকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর অভিযোগ দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে

161

বিশ্বজিৎ মণ্ডল, মালদাঃ ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তুলে নিয়ে যাওয়ার সময় ব্যাঙ্ক কর্মীকে লুঠের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে যাওয়ায় ব্যাঙ্ক কর্মীকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর অভিযোগ একদল দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। শুক্রবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার খোশালপুর গ্রামে। ওই ঘটনার পর দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়। ঘটনায় জোর চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ।

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, একটি রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্ক থেকে কপায়চন্ডী গ্রামের গ্রাহক পরিষেবা কেন্দ্রে বাইকে করে যাচ্ছিলেন ব্যাঙ্ক কর্মী শুকদেব দাস। রাজ্য সড়কে কস্তুরীয়া গ্রামের কাছে ওই ব্যাঙ্ক কর্মীকে আটক করে দুটি মোটর বাইকে করে  আসা চারজন দুষ্কৃতী। শুকদেব বাবু বুঝতে পারে তাকে ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যেই পথ আটকানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। পরে সে নিজের উপস্থিত বুদ্ধিতে টাকা সহ বাইক নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।  খোশালপুর গ্রামের কাছে এসে স্থানীয় লোকজনদের শুকদেব বাবু ওই ঘটনার কথা জানায়। সেই সময় ওই চার দুষ্কৃতীরা সেখানে পৌঁছায়। স্থানীয় লোকজনরা কিছু বুঝে উঠাতে না উঠতে শুকদেব বাবুকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় বলে অভিযোগ। যদিও ওই গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে মাটি গুলি লাগে। ছিনতাইয়ে ব্যর্থ হয়ে প্রকাশ্যেই দুই রাউন্ড গুলি চালিয়ে দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়। ওই ঘটনার খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ। ওই ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ।

ব্যাঙ্ক কর্মী শুকদেব দাস বলেন, ২০১২ সাল থেকে আমি ব্যাঙ্কের কাজ করি। প্রতিদিনের মতো তুলসিহাটা এলাকা থেকে কপাইচন্ডী অফিসে যাই। আজকেও ব্যাঙ্ক থেকে ৫ লক্ষ টাকা তুলে নিয়ে সেই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলাম। ওই দুষ্কৃতীরা দুটি মোটরবাইকে মুখ ঢাকা হেলমেট পরা অবস্থায় আমাকে আটক করে। আমি বুঝতে পেরেছি যে তারা ছিনতাইবাজ। সেখান থেকে পালিয়ে গিয়ে পাশের গ্রামে গিয়ে স্থানীয় লোকজনকে জানাই। সেইখানে গিয়ে ওই ছিনতাই কারীরা আমাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। আমি সরে গেলে ওই গুলি মাটিতে লাগে। ভাগ্য জড়ে আমি আজ বেঁচে যাই।