অশান্তির আশঙ্কায় পূজার হচ্ছে না কোচবিহারের পরেশকরের চৌপথিতে, বিষাদগ্রস্থ এলাকাবাসী

632

মুক্তাঙ্কন বর্মণ, ১ অক্টোবরঃ জমি আন্দোলনকে কেন্দ্র করে টানা উত্তেজনা থাকায় এবার পূজা হচ্ছে না কোচবিহার ২ নং ব্লকের খাগড়াবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের পরেশকরের চৌপথিতে। দীর্ঘ ৫০ বছর ধরে পূজা হয়ে আসছে ওই গ্রামে। গত বছর ধুমধাম করে সুর্বণ জয়ন্তী বর্ষ পালন করা হলেও এবার আর মা আসবেন না ওই গ্রামে।

এদিন ওই গ্রামে গিয়ে দেখা যায় পূজা না হওয়ার কারন নিয়ে কেউই প্রকাশ্যে কথা বলতে চাইছেন না। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন বাসিন্দা জানিয়েছেন, ওই গ্রামে বেশ কয়েকজন কৃষকের চাষের জমি প্রলোভন দেখিয়ে কিনে নেয় স্থানীয় এক তৃণমূল নেতা। শেষ পর্যন্ত কৃষকদের দেওয়া প্রলোভন পূরণ না হওয়ায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

শুনশান ক্লাব চত্বরের মাঠ,নেই পূজার কাঠামো

এরপরই লোকসভা নির্বাচনে কোচবিহার কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেসের ভরাডুবি হলে ওই গ্রামে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা জমি রক্ষা কমিটি নাম দিয়ে সংগঠন তৈরি করে আন্দোলন শুরু করে। ওই আন্দোলনের জেরে একাধিকবার উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছিল সেখানে। বাসিন্দাদের আশঙ্কা পূজার মধ্যেও উত্তেজনা সৃষ্টি হতে পারে। আর হয়ত সেই কারনেই পূজা করতে সাহস পাচ্ছেন না সেখানকার বাসিন্দারা। আর তাতেই মন খারাপ ওই গ্রামের কচিকাঁচা থেকে প্রবীণ বাসিন্দারাও।

গ্রামবাসীদের পক্ষে নান্টু চক্রবর্তী অত্যন্ত দুঃখের সহিত জানান, বিগত ৫০ বছর ধরে আমাদের পাড়ার এই পূজা হয়ে আসছে। কিন্তু অশান্তির কারনে এবার আমরা পূজা করার সাহস পাচ্ছি না। তাই এবারে আমাদের মন বিষাদে ভারাক্রান্ত।

এলাকার অপর এক গৃহবধূ ঝুমুর অধিকারী বলেন, জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা তৈরি হয়। তাই পূজার আয়োজন হলে সেখানে যদি কোন ধরনের বড় অঘটন ঘটে তবে তার দায় কে নেবে। এ প্রশ্নেই ঘুরপাক খাচ্ছে আমাদের মনে। তবে পাড়ায় পূজা না হওয়ার দরুন আমরা খুবই দুঃখিত।