পিংলায় বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ ৭০০ জন কর্মী সমর্থকের

234

কার্ত্তিক গুহ, ঝাড়গ্রামঃ রাজ্য জুড়ে দল বদলের পালা অব্যাহত। এবারে সেই ধারাকে ব্যাহত থাকল ঝাড়গ্রামেও। শনিবার বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন  পিংলা ব্লকের ৭০০ জন কর্মী সমর্থকেরা। এদিন সেখানকার গোবর্ধনপুর গ্রামে একটি অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন রাজ্যের জনস্বাস্থ্য কারিগরী মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র। এছাড়াও এদিনের উপস্থিত ছিলেন জেলা তৃণমূল সভাপতি অজিত মাইতি, জেলা যুব সভাপতি প্রসেনজিৎ চক্রবর্তী, পিংলা ব্লক সভাপতি অজিত ভৌমিক।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটে পিংলা থেকে জয়ী হন সৌমেন মহাপাত্র। এরপরই তিনি মন্ত্রী হন। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে ঘাটাল লোকসভার কেন্দ্রে থেকে জয়ী হন তৃণমূল প্রার্থী তথা অভিনেতা দীপক অধিকারী ওরফে দেব। তবে ভোটে জয়ী হলেও পিংলা বিধাসনসভা এলাকায় ৯ হাজার ভোটে পিছিয়ে ছিল তৃণমূল। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ঘর গোছাতে শুরু করে ভারতীয় জনতা পার্টি।  গোছাতে শুরু করেন তাঁদের সংগঠনও। এরপরই পিংলার সমস্ত তৃণমূল কর্মী সমর্থকেরা একে একে ভিড় জমাতে শুরু করেন বিজেপিতে। কিন্তু এবারে তাঁদের সব চেষ্টাকে বানচাল করে আবারও সেই কর্মীরাই তৃণমূলের দলীয় পতাকা তলে ঠাই নিলেন।

এদিনের এই সভায় উপস্থিত হয়ে রাজ্যের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র বলেন, ধীরে ধীরে আমাদের কর্মীদের মোহ ভাঙতে শুরু করেছে।  বেহাল অর্থনীতি , সাম্প্রদায়িকতা আর এনআরসি ইস্যুকে তাঁরা বুঝতে পেরে আবার আমাদের দলেই প্রত্যাবর্তন করছেন।

এদিকে তৃণমূলে যোগ দেওয়া তৃণমূল কর্মীরা বলেন, আমাদের যা যা বলা হয়েছিল তাঁর সাথে বাস্তবের কোনো মিল নেই। বিজেপি নেতারা খুব দাম্ভিক। তাঁরা কোনোরকম প্রশ্নের উত্তর দিতে চান না।তাই আমরা সেখানে হাঁফিয়ে উঠেছিলাম। অবশেষে আমরা আমাদের সব ভুল বুঝতে পেরে আবার পুরনো দলেই ফিরে আসলাম।