প্রায় এক বছর ধরে বেহাল মাথাভাঙা শীতলকুচি পাকারাস্তা, ক্ষোভে ফুসছেন সাধারন মানুষ, রাজনৈতিক দলগুলিও

36

কাজল রায়, মাথাভাঙ্গাঃ প্রায় এক বছর ধরে মাথাভাঙ্গা শীতলকুচি পাকা রাস্তা বেহাল হয়ে পড়েছে। মেরামত করার হেলদোল নেই প্রশাসনের। অল্প বৃষ্টি হলেই রাস্তা পুকুরে পরিণত হয়। মাথাভাঙ্গা শীতলকুচি রাস্তার কথা শুনলেই গাড়িচালক থেকে নিত্যযাত্রী মাথায় হাত দিয়ে জিভ কাটেন। কেউ এই রাস্তা দিয়ে যেতে চান না। জলকাদা নর্দমায় পরিণত হয়েছে এই রাস্তাটি। বৃষ্টি হলে কোথায় গর্ত আছে বোঝা যায়না  জল জমে থাকার কারণে। আর দুর্ঘটনার কথা তো বলাই যায় না। প্রত্যেকদিন ছোট বড় দুর্ঘটনা লেগেই রয়েছে। এই রাস্তা নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে রাজনৈতিক দলগুলোও। কিন্তু বলার জায়গা কোথায়। প্রশাসনকে জিজ্ঞেস করা হলে সবাই বলে খুব দ্রুত এই রাস্তা মেরামতের কাজ শুরু হবে। এটা একটা হাস্যকর ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে নিত্যনৈমিত্তিক। মাথাভাঙ্গা শীতলকুচি পাকা রাস্তা এখন যেন দুর্ঘটনার অন্যতম স্থান।

এ প্রসঙ্গে মাথাভাঙ্গার মহকুমা শাসক অচিন্ত্য কুমার হাজরা জানান, খুব দ্রুত এ রাস্তা মেরামতের কাজ শুরু হবে তার প্রক্রিয়া ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। স্থানীয় বাসিন্দা সুভাষ রায়, স্বপন দত্ত, উত্তম দত্ত গোলকগঞ্জ ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক কেশব বর্মন তারা বলেন, এই রাস্তাটি নিয়ে বিশাল সমস্যা রয়েছে। ভাঙা রাস্তা থাকার কারণে জরাজীর্ণ অবস্থায় মাঝেমধ্যেই দুর্ঘটনা লেগেই রয়েছে। যেহেতু পাশে দোকান রয়েছে আমাদের তাই মানবিকতার খাতিরে দুর্ঘটনা কবলিত স্থানে আমাদের গিয়ে প্রাথমিক কাজ করতে হয় বিশেষ করে সাহায্য করতে হয়। যাই হোক এই রাস্তা কবে মেরামত হবে তার প্রশ্নের উত্তর সঠিক কেউ বলতে পারছে না।

প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, মাথাভাঙা শীতলকুচি রাস্তাটি নাকি সম্প্রসারণ করা হবে। স্থানীয়দের দাবি শুধু মেরামত নয়, মেরামতের পাশাপাশি রাস্তাটি সম্প্রসারণ করা হোক। এখন দেখার বিষয় রাস্তাটি কবে মেরামত হয় কিংবা কবে সম্প্রসারণ হয় সেটার জন্য অপেক্ষা করতে হবে সাধারণ মানুষদের যারা নিত্যদিন যন্ত্রণা ভোগ করেন।