জুনিয়ার হাই স্কুলে সাড়ে পাঁচ বছর ধরে বিনা পারিশ্রমিকে শিক্ষাদান চার যুবকের

134

কমল মজুমদার, জঙ্গিপুরঃ এক দিকে রাজ্যে যখন শিক্ষকদের নিয়মানুবর্তিতা করতে প্রযুক্তিতে হাজিরা চালু করেছে, সেই সময় গ্রামের স্কুলকে টিকিয়ে রাখতে বিনা পারিশ্রমিকে শিক্ষা দান করে চলেছে এলাকারি চার যুবক।

জানা গেছে, মুর্শিদাবাদে স্কুল টিকিয়ে রাখতে বিনা পারিশ্রমিকে শিক্ষাদান  এলাকারী চার যুবকের। জেলার সাগরদীঘি ব্লকের দস্তুরহাট জুনিয়ার হাই স্কুলে একটি মাত্র শিক্ষক। সেই স্কুলকে টিকিয়ে রাখতে প্রায় সাড়ে পাঁচ বছর ধরে বিনা পারিশ্রমিকে শিক্ষাদান করে চলেছে চার যুবক। অত্যন্ত পিছিয়ে পড়া গোবর্ধনডাঙ্গা অঞ্চলে ২০০৮ সালে দস্তুরহাট জুনিয়ার হাই স্কুলটি স্থাপিত হয়।

২০০৯ সালে স্কুল সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে বাসুদেব পাল, নজরুল ইসলাম ও নরেশ রায় নামের তিন শিক্ষক নিয়োগ হয়। কিন্তু  আবার এসএসসির  মাধ্যমে ২০১৩ সালে নজরুল ইসলাম ও নরেশ নামের দুই শিক্ষক অন্যত্র বদলি হয়ে চলে যায়। স্কুলে তখন বাসুদেব পাল মাত্র এক জন শিক্ষক হয়ে পড়ে।

একাকিত্ব হয়ে বাসুদেব পাল স্কুলে শিক্ষারমান সঠিক রাখতে এলাকারী কিছু শিক্ষা অনুরাগীদের নিয়ে আলোচনা করে। তার পরে শিক্ষা অনুরাগীরা এলাকারী চার যুবককে সেই স্কুলে বিনা পারিশ্রমিক শিক্ষাদানের জন্য অনুরোধ করে। সেই যুবকরা স্কুল টিকিয়ে রাখতে শিক্ষাদানের জন্য রাজি হয়ে যায়।

২০১৩ সাল থেকে আজ পর্যন্ত তারা বিনা পাতিশ্রমিকে শিক্ষাদান করে চলেছে এরফান আলী, সরাফত সেখ, জিতেন রবিদাস, রাজেশ রা। স্কুলে মাত্র এক জন শিক্ষক তাই স্কুলকে টিকিয়ে রাখতে প্রায় সাড়ে পাঁচ বছর ধরে বিনা পারিশ্রমিকে শিক্ষা দান করে চলেছে এলাকারই চার যুবক।