যাদবপুরে ফের বিক্ষোভের মুখে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর

79

ওয়েব ডেস্ক, ২৪ ডিসেম্বরঃ ফের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর।যাদবপুরে সমাবর্তনে গিয়ে পড়ুয়াদের বিক্ষোভের সামনে পড়লেন রাজ্যপাল তথা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীপ ধনকড়।কালো পতাকা হাতে বিক্ষোভ দেখান ছাত্রছাত্রীদের একাংশ। পড়ুয়াদের এই অনড় অবস্থান নিয়ে চিন্তার মেঘ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে। ছাত্রছাত্রীদের গো-ব্যাক স্লোগানের মুখে পড়লেন রাজ্যপাল।

টুইটে তিনি কটাক্ষ করে লিখেছেন পাঁচ নম্বর গেট দিয়ে প্রবেশ করতে যায় রাজ্যপালের গাড়ি সেখানেই আটকে দেওয়া হয়।গাড়ির মধ্যে থেকেই এই অবস্থার কথা টুইটারে লিখেছেন। তিনি জানিয়েছেন , ‘আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃতি পড়ুয়াদের সম্মান প্রদান করতে এসেছি, কিন্তু আমাকে ভিতরে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। আমি খুবই বীতশ্রদ্ধ এই ঘটনায়।’ প্রসঙ্গত, আজ সমাবর্তন অনুষ্ঠানে পৌরহিত্য করার কথা রাজ্যপালের। পড়ুয়াদের পাশাপাশি তৃণমূল সমর্থিত শিক্ষাকর্মী সংগঠনের কর্মীরাও পথ অবরুদ্ধ করেন রাজ্যপালের।

এদিন ক্ষোভে ফেটে পড়েন জগদীপ ধনকড়। তিনি বলেন, “রাজ্যপাল এবং আচার্য হিসেবে আমার জন্য এটা খুব দুঃখজনক একটা দিন। সমস্ত শিক্ষা ব্যবস্থা এবং গণতন্ত্র ভেঙ্গে পড়েছে। শিক্ষার ব্যবস্থার ডিএনএতে পচন ধরে গিয়েছে। যারা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত তাঁদের প্রত্যেককে এর দায় নিতে হবে। আমি সংবাদমাধ্যমের কাছে আবেদন জানাচ্ছি এই ঘটনা সকলের কাছে তুলে ধরুন। আগুন নিয়ে খেলছেন। গণতন্ত্রকে চুরমার করেছেন। রাজ্য সরকার এই জায়গায় নিয়ে গেছেন শিক্ষাব্যবস্থাকে। রাজ্যনীতি চলছে শিক্ষাঙ্গনে। রাজ্য সরকারের ব্যর্থতা যে রাজ্য এমন ঘটনা ঘটছে। আর উপাচার্যকে দেখুন, উনি বলছেন আমি নিরুপায়। আপনি যদি নিরুপায় হন তাহলে পদ ছেড়ে দিন। আচার্য হিসেবে আমি নিরুপায় নই। আমি এই সিস্টেমকে সংস্কার করতে চাই। আমি পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত। আচার্য ছাড়া সমাবর্তন হয় কি করে?”

আচার্যর অনুপস্থিতিতে উপাচার্য সমাবর্তন অনুষ্ঠানে পৌরহিত্য করতে পারবেন, এমনটাই জানিয়েছেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তবে গোটা বিষয়টি এখনও আলোচনাধীন এমনটাই জানিয়েছেন তাঁরা।

প্রসঙ্গত, গতকালও রাজ্যপালকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন পড়ুয়ারা। রাজ্যপাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ নম্বর গেটে পৌঁছোতেই তাঁকে আটকে রেখে চলে গো-ব্যাক স্লোগান। ওড়ান হয় কালো পতাকা। তাঁকে রাজ্যপালকে নিজের গাড়ি থেকে নামতে পর্যন্ত দেওয়া হয়নি। তিনি আটকে আছেন গাড়ির ভিতরেই। সিএএ-র বিরোধিতায় ছাত্রছাত্রীটির বিক্ষোভ করছে।