ক্রমশ শক্তি বাড়াচ্ছে যশ ২৬ মেঃ আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা

77

ওয়েব ডেস্ক, ২১ মেঃ আজ থেকেই প্রস্তুতি নিতে শুরু করবে ঘূর্ণিঝড় যশ। যার ফলে অস্বস্তিকর গরম বাড়বে দক্ষিণবঙ্গের সমস্ত জেলা জুরে। সমুদ্রের উপরিভাগের বাতাসের উপরে তৈরি হয় এই এল নিনো ও সাউথ অক্সিলেশন পরিস্থিতি। এই পরিস্থিতি যত জোরালো হবে তত ঝড়ের সম্ভাবনা বাড়বে।

আর এই ঝড় তার শক্তি বৃদ্বির জন্য বাতাসের সমস্ত জ্বলীয় বাষ্পকে টানতে শুরু করে। এবং এর ফলে প্রকৃতির যে হাওয়া থাকে তাও সমুদ্র শুষে নিতে শুরু করে। যা ক্রমে অতি গভীর নিম্নচাপ ও আরও পরে আশেপাশের অঞ্চল থেকে ওই হাওয়া শুষে নিয়ে পেট ভরিয়ে নেয় এবং পরে উগরে দেওয়ার সময় হয় ঝড়ের তাণ্ডব। আজ শনিবার, সেই ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নেওয়ার আগে আরও প্রস্তুতি শুরু হবে এমনটাই বলছেন আবহাওয়াবিদরা।

এই পরিস্থিতি ইতিমধ্যেই তৈরি হতে শুরু করেছে তার প্রমাণ মিলেছে কলকাতার সকালের আবহাওয়াতেই। সকাল থেকেই পারদ প্রায় ত্রিশ ছুঁই ছুঁই। মেঘলা আকাশে অবস্থা খুবই অস্বস্তিকর। আজ কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি বেশি। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমান সর্বোচ্চ ৮৯ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৩৭ শতাংশ। আগামী কয়েকদিন স্বাভাবিক ভাবেই অস্বস্তি বাড়বে বলেই জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের সহ অধিকর্তা সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘পূর্বাভাস মতোই তৈরি হবে নিম্নচাপ। ২৪ তারিখ তা ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নেবে। তারপর সেটি ক্রমে এগিয়ে যাবে বাংলা ওডিশা উপকূলের দিকে। ২৫ তারিখ সন্ধ্যার পর কখনও হালকা থেকে মাঝারি কখনও ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হবে উপকূলীয় জেলা ও দক্ষিণবঙ্গের সমস্ত জেলায়। সময় অন্তর বাড়বে বৃষ্টির পরিমাণ।