বিজেপির হাত থেকে চক্‌ভৃগু পঞ্চায়েত ছিনিয়ে নিল তৃণমূল

80

সুদীপ বল,বালুরঘাট:  বিজেপি পরিচালিত চক্‌ভৃগু পঞ্চায়েতের দখল নিল তৃণমূল কংগ্রেস। চক্‌ভৃগুর সাতটি মৌজা পৌরসভার অন্তর্গত হওয়ার পর সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন বিজেপির থাকলেও এদিন তাঁদের এক সদস্য তৃণমূলের পক্ষে ভোট দান করেন। দুই আসন নিয়েও শাসক দলের এমন কেরামতিতে খানিকটা বিপাকে গেরুয়া শিবির। এদিন লটারির মাধ্যমে তৃণমূলের পিটার বারুকে চক্‌ভৃগু পঞ্চায়েতের প্রধান নির্বাচন করা হয়েছে। পঞ্চায়েত দখলের আনন্দে এদিন তৃণমূল অঞ্চল সভাপতির নেতৃত্বে সবুজ আবীর উড়িয়ে এলাকায় বিজয় মিছিল করেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা। ফটাকা ফাটিয়ে আনন্দে মাতেন সকলে।

পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর ১৪ আসন বিশিষ্ট চক্‌ভৃগু পঞ্চায়েত বিজেপির দখলে থাকলেও সম্প্রতি সাতটি মৌজা পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত হয়। যার পরে চক্‌ভৃগু পঞ্চায়েতের ৪টি আসন বিজেপির দখলে, ২টি তৃণমূলের এবং একটি আসন দখলে ছিল। বিজেপির এক সদস্য পিঙ্কি সরকারকে দলে টেনে ওই পঞ্চায়েত বোর্ড নিজেদের দখলে নিয়েছে তৃণমূল। এদিন সন্ধ্যায় চক্‌ভৃগু দলীয় কার্যালয়ে বিজেপি সদস্যের হাতে তৃণমূলের দলীয় পতাকা তুলে দিয়েছেন জেলা তৃণমূল সভাপতি অর্পিতা ঘোষ এবং উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা।

উল্লেখ্য, পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর চক্‌ভৃগুর পাঁচটি করে আসন তৃণমূল ও বিজেপির দখলে থাকলেও বামেদের দখলে ছিল মাত্র চারটি আসন। সেই সময় লটারী করে বর্ডের দখল নেয় বিজেপি। সম্প্রতি চক্‌ভৃগুর ৭টি মৌজা পুরসভার অন্তর্ভুক্ত হয়। ফলে বাকি সাতটি মৌজার মধ্যে তৃণমূল বিজেপির এক সদস্যকে ভাঙিয়ে লটারীর মাধ্যমে বোর্ড দখল নিয়েছে। এমন ঘটনায় স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বদের দুর্বল দিক সামনে এসেছে।

তৃণমূলের চক্‌ভৃগু অঞ্চল সভাপতি রূপক দত্ত জানিয়েছেন, তৃণমূলের উন্নয়নে সামিল হতে তাঁদের পতাকা তুলে নিয়েছেন পিঙ্কি সরকার। লটারীর মাধ্যমে পিটার বাড়ুকে প্রধান নির্বাচন করা হয়েছে।

বিজেপির জেলা সভাপতি বিনয় বর্মন জানিয়েছেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। মন্ডল সভাপতির সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।