পুজোয় ভারী বৃষ্টির সম্ভবনা দক্ষিনবঙ্গে, ভাসবে উত্তরবঙ্গের কয়েকটি জেলাও

16

ওয়েব ডেস্ক, ২৮ সেপ্টেম্বরঃ শুরু হল মাতৃপক্ষ তবে এখনও শরতের সেই চেনা আকাশের কোন চিহ্ন মাত্র নেই। মেঘের আনাগোনায় দুশ্চিন্তা বাড়ছে পুজো আয়োজকদের, চিন্তায় প্রতিমা শিল্পীরা ও সাধারণ মানুষ। উত্তরপ্রদেশের ঘূর্ণাবর্তে ভিজবে দক্ষিণবঙ্গ। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, এরকম পরিস্থিতি চলবে অন্তত রবিবার পর্যন্ত। হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। পশ্চিমের জেলাগুলিতে একটু বেশি বৃষ্টি হবে।  উত্তরবঙ্গের মালদা ও দুই দিনাজপুরের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্ত ভারী বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে   দার্জিলিং ও জলপাইগুড়িতেও।

পুজোতে এবার বাধ সাধতে চলেছে বৃষ্টির তাণ্ডব। জানা গেছে নিম্নচাপটি জোলো হাওয়া শুষে, শক্তি বাড়াতে চাইছে। তাই বঙ্গোপসাগর থেকে দক্ষিণবঙ্গের ওপর দিয়ে ভেসে চলেছে জলভরা মেঘ। যাওয়ার পথে সেই মেঘ এরাজ্যে বৃষ্টি হয়ে নামবে বলেই মনে করা হচ্ছে। হিসেব মত তৃতীয়া থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের দুর্গা পূজার মণ্ডপ উদ্বোধন হয়ে যাবে। তার সাথে সাথে মণ্ডপমুখী হবেন বহু দর্শনার্থী। তাই নাওয়া খাওয়া ভুলে মণ্ডপ ও প্রতিমা তৈরিতে ব্যাস্ত শিল্পীরা। কয়েকদিনের মধ্যে তাদের মণ্ডপে সব কাজ সারতে হবে।

পুজো কর্তারা আশা করেছিলেন, মহালয়ার থেকে হয়ত আকাশ পরিস্কার হবে। রোদ উঠে স্বস্তি দেবে। কিন্ত সেই আশায় জল ঢেলে দিয়েছে বৃষ্টি। মাঝেমধ্যে মেঘ সরে গিয়ে হালকা রোদ উঠলেও তা স্থায়ী হচ্ছে না। ফের বৃষ্টি নামছে। খুব জোরে বৃষ্টি না হলেও যেটুকু হচ্ছে, তা পুজো প্রস্তুতিতে ব্যাঘাত ঘটার জন্য যথেষ্ট। তারপরও এদিন সকালের দিকে আবহাওয়া একটু শুকনো থাকায় জোরকদমে মণ্ডপ তৈরির কাজ চালানো হয়।

হাতে গোনা কয়েকদিনের বাকি তাড়াতাড়ি কাজ সেরে ফেলার জন্য কোথাও কোথাও বার্নার জ্বালিয়ে প্রতিমা শোকাতে দেখা গেছে। অনেক পুজো আয়োজকরা প্রতিমা মণ্ডপে নিয়ে চলে গেলেন শেষ পর্বের কাজ সেখানেই সেরে ফেলার জন্য। আবহাওয়া দফতর জানায়, শনিবার উত্তর বঙ্গোপসাগরে একটি ঘূর্ণাবর্ত দাঁনা বাঁধতে পারে।এদিকে আবহাওয়া দফতরের খবরে দুচিন্তার ছায়া পুজো আয়োজকদের মধ্যে।