অভিনেত্রী মৌসুমি চ্যাটার্জির বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করবেন তাঁর জামাই

156

ওয়েব ডেস্ক, ২৯ ডিসেম্বরঃ  অভিনেত্রী মৌসুমি চট্টোপাধ্যায়কে এবার আদালতে টেনে নিয়ে যাচ্ছেন তাঁর জামাই।জানা গিয়েছে, অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে আগামী মাসেই মানহানির মামলা দায়ের করতে চলেছেন তাঁর জামাই ডিকি সিনহা।এই মাসেই মৌসুমি চ্যাটার্জির মেয়ে পায়েল ডিকি সিনহার মৃত্যু হয়। দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থতায় ভুগছিলেন পায়েল। ২০১৭ সালে পায়েলকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতাল থেকে বাড়িতে নিয়ে আসেন তাঁর স্বামী। ২০১৮ সাল থেকে বাড়িতেই ছিলেন তিনি। ফলে চিকিৎসা বন্ধ হয়ে যায়।

ছোট থেকেই ডায়াবেটিস  রোগে ভুগছিলেন তাঁর মেয়ে। তার ওপর মানসিক রোগেও ভুগছিলেন তাঁর মেয়ে।বাড়িতে এনে চিকিৎসা বন্ধ রাখার পর আচমকাই ১৩ তারিখে মৃত্যু হয় মৌসুমি চ্যাটার্জির।তাঁর মানসিক চিকিতসাও বন্ধ ছিল বলে একাধিকবার বলে অভিযোগ করেন মৌসুমি৷এরপরই পায়েলের স্বামী  ডিকি সিনহা এবং তাঁর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন তিনি৷সেই থেকেই জামাই-শাশুড়িতে টানাপোড়েন চলছিল৷ পায়েলের মৃত্যুর পর দুই পরিবারের মধ্যে সম্পর্ক আরও তিক্ত হয়ে যায়।

সম্প্রতি ডিকি সিনহা অভিযোগ করেন, মৃত্যুর পর মেয়ের মৃতদেহ শেষবারের জন্য দেখতেও আসেননি অভিনেত্রী মৌসুমি চট্টোপাধ্যায়। শেষ যাত্রায় তাঁর মেয়েকে দেখতে আসেন তাঁর বাবা এবং বোন। ডিকি সিনহা বলেন, তাঁর স্ত্রীর শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে। ৪০ দিন পর ত্রিবেনীতে তাঁর স্ত্রীর অস্থি বিসর্জন করা হবে।পায়েলের অস্থি বিসর্জনের পরই মৌসুমি চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হবেন বলে সাফ জানান ডিকি সিনহা।

২০১০ সালে ব্যবসায়ী ডিকি সিনহার সঙ্গে বিয়ে হয় মৌসুমি-কন্যা পায়েলের৷ সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তাঁদের প্রথম পরিচয় হয়৷পায়েল এবং ডিকির বিয়েতে রাজি ছিলেন না মৌসুমি চ্যাটার্জি৷ ফলে মেয়ের বিয়ের পর থেকেই দুই পরিবারেই অসন্তোষ প্রকাশ করতে শুরু করেন বলে খবর৷ যদিও এ বিষয়ে কোনও কোনও মন্তব্য করেননি মৌসুমি চ্যাটার্জি৷