‘সুব্রতর ঘরে একটা জিনিস দিতে গিয়েছিলাম’, গোপন বৈঠক নিয়ে মুখ খুললেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়

233

ওয়েব ডেস্ক, ২২ মেঃ রাতের অন্ধকারে এসএসকেএম-এর উডবার্ন ওয়ার্ডে পায়চারি করছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়, মদন মিত্ররা!নারদ মামলায় গ্রেফতারের পর তাঁরা অসুস্থ। এসএসকেএম-এর ওই ওয়ার্ডেই চিকিৎসাধীন দু’জনে। শোভন-মদনকে এক সংবাদমাধ্যমের ভিডিয়োতে এমনভাবে দেখা গেল, যেন তাঁরা একেবারেই ফিট! নারদ কাণ্ডে ধৃত সুব্রত মুখোপাধ্যায়ও অসুস্থ হয়ে ওই হাসপাতালেই ভর্তি। রাতে সুব্রতর কেবিনে নাকি শোভন-বৈশাখী ও মদন গোপন বৈঠক করেছেন। আর এ নিয়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে রাজ্য রাজনীতি। এই ভিডিয়ো নিয়ে এবার মুখ খুললেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়।

ঠিক কী বললেন বৈশাখী?

বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘গোপন বৈঠকের রসালো আঙ্গিক মিডিয়ার দেওয়া…শোভনবাবুর ঘরে ওকালতনামা দিতে গিয়েছিলাম। সুব্রতবাবুর ওকালতনামাও আমার কাছে ছিল। আমার সঙ্গে ওঁদের উকিলও ছিলেন। শোভনবাবুকে হাঁটতে বলেছেন ডাক্তাররা। ওঁর শরীরে তো কোনও মেশিন বসানো নেই। গোপন বৈঠকের কী আছে! উনি প্রতিদিনই দু’বার হাঁটেন। গতকাল ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। বৈঠকের জন্য পাঁচটা মিনিট সময় লাগে। কেউ ঢুকছে, আর বেরোচ্ছে, সেটা বৈঠক হয়ে যায়? একটা জিনিস দেওয়ার ছিল, তাই গিয়েছিলাম’।

এদিকে, হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, সিরোসিস অফ লিভারে আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। এই সময় ডিজিটালকে ফোনে শোভন বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ও জানান, শোভনবাবুর লিভারের সমস্যা ছিল। তবে, অন্যদিকে, মদন মিত্রও গুরুতর অসুস্থ। কিন্তু, গতকালের ওই ভিডিয়োয় দু’জনের হাঁটাচলা ও বডি ল্যাঙ্গোয়েজ যেভাবে দেখা গিয়েছে, তাতে তাঁরা আদৌ গুরুতর সুস্থ কিনা, সে নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। তবে, মদন মিত্রের বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি বৈশাখী। অন্যদিকে, শোভন চট্টোপাধ্যায়কে এখনই বাড়ি নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেননি বলে জানিয়েছেন বৈশাখী।